১১ বছর আগে বেপরোয়া গতিতে ট্রাক চালানোর কারণে পথচারী নিহতের ঘটনায় সাজাপ্রাপ্ত পলাতক এক চালককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার রাতে ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার মাঝিস্ট্যান্ড এলাকায় সোনাগাজী-মুহুরি প্রকল্প সড়কে ওই ট্রাক চালককে গ্রেপ্তার করা হয়। দণ্ডবিধির তিন ধারায় দুই বছর আগে ওই চালককে আট বছর চার মাসের কারাদণ্ড দেন চট্টগ্রাম মহানগর ষষ্ঠ আদালত।

গ্রেপ্তার ট্রাকচালকের নাম মো. মাহবুব ওরফে ‘মাবুব ড্রাইভার’ (২৮)। তিনি সোনাগাজী পৌরসভার চরগণেশ এলাকার নুরুল হকের ছেলে।

সোনাগাজী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কামাল হোসেন বলেন, ২০০৮ সালে রাস্তায় ট্রাকচাপায় এক ব্যক্তি নিহত হওয়ার ঘটনায় মাহবুবের বিরুদ্ধে চট্টগ্রামের পতেঙ্গা থানায় দণ্ডবিধির তিনটি পৃথক ধারায় মামলা হয়। ওই মামলায় তিনি গ্রেপ্তার হয়ে ১৩ মাস কারাভোগের পর জামিনে মুক্ত হন। তবে এরপর আদালতে আর হাজিরা না দিয়ে পালিয়ে যান। দীর্ঘ শুনানি শেষে ২০১৭ সালে চট্টগ্রাম মহানগর ষষ্ঠ আদালত মো. মাহবুবকে দোষী সাব্যস্ত করে আট বছর চার মাসের কারাদণ্ড দেন।

থানা সূত্রে জানা যায়, ২০০৮ সালে পতেঙ্গায় মাহবুবের ট্রাকের নিচে পড়ে আহত হন এক পথচারী। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঘটনার সপ্তাহখানেক পর ওই ব্যক্তি মারা যান। শুরুতে চালক মাহবুবের বিরুদ্ধে কোনো মামলা হয়নি। তবে ওই পথচারী মারা যাওয়ার পর মাহবুবের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির তিনটি ধারায় মামলা হয়। এর মধ্যে আদালত দণ্ডবিধির ২৭৯ ধারায় বেপরোয়া গাড়ি চালানো বা আরোহণের দায়ে তিন বছর চার মাস, ৩৩৮ (ক) ধারায় জনপথে বেপরোয়া গাড়ি চালিয়ে গুরুতর আঘাতের দায়ে দুই বছর এবং ৩০৪ (খ) ধারায় বেপরোয়া যান চালিয়ে মৃত্যু ঘটানোর অপরাধে তিন বছরের কারাদণ্ড দেন। ফলে মাহবুব মোট সাজা পান ৮ বছর চার মাস।

পুলিশ বলছে, দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর সম্প্রতি বাড়ি আসেন মাহবুব। তাঁর বাড়ি আসার খবর পেয়ে সোনাগাজী মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. নুরুল করিমের নেতৃত্বে পুলিশ অভিযান চালিয়ে পৌরসভার মাঝি স্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসেন। আজ রোববার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে মাহবুবকে ফেনীর কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0