খেলাধুলাকে মাঠ পর্যায়ে আরও ছড়িয়ে দিতে ‘জাতীয় ক্রীড়া দিবস’ নামে একটি দিবস ঘোষণার সুপারিশ করেছে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। কমিটি এক্ষেত্রে ২৪ জুলাইকে অগ্রাধিকার দিতে বলেছে। সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত আজ সোমবার কমিটির বৈঠকে এই সুপারিশ করা হয়।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি জাহিদ আহসান প্রথম আলোকে দেশে অনেক দিবস আছে। কিন্তু কোনো ক্রীড়া দিবস নেই। এজন্য কমিটি ২৪ জুলাই অথবা অন্য কোনো গ্রহণযোগ্য দিনকে ক্রীড়া দিবস ঘোষণা করতে বলেছে।
বৈঠক সূত্র জানায়, ১৯৭১ সালের ২৪ জুলাই ‘স্বাধীনবাংলা ফুটবল দল’ প্রথম ভারতের মাটিতে নদীয়া একাদশের বিরুদ্ধে খেলায় অংশ নেয় এবং বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা নদীয়া জেলার কৃষ্ণনগর স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে মাঠ প্রদক্ষিণ করে। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে প্রচারণা ও অর্থ সংগ্রহের জন্য ৩১ জন খেলোয়াডের সমন্বয়ে ওই ফুটবল দল গঠন করা হয়। দলের অধিনায়ক ছিলেন জাকারিয়া পিন্টু।
জাহিদ আহসান জানান, ১৯৭১ সালের ২৪ জুলাই ‘স্বাধীনবাংলা ফুটবল দল’ ভারতের মাটিতে নদীয়া একাদশের বিরুদ্ধে ফুটবল খেলে দেশের পতাকা তুলে ধরে। ঐতিহাসিক এই প্রেক্ষাপটের কারণেই কমিটি ২৪ জুলাইকে জাতীয় ক্রীড়া দিবস হিসেবে বিবেচনা করার সুপারিশ করেছে।
সংসদ সচিবালয় থেকে জানানো হয়, বৈঠকে নারী খেলোয়াড়দের সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে কোটা দেওয়ার যায় কিনা, তা পর্যালোচনা করে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।
জাহিদ আহসানের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার, গোলাম ফারুক খন্দকার প্রিন্স, এ এম নাঈমুর রহমান, মাহবুব আলী ও নূরুল ইসলাম তালুকদার অংশ নেন।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন