২৬ লাখ টাকার বিদেশি মুদ্রাসহ ট্রেনযাত্রী আটক

বিজ্ঞাপন
default-image

কিশোরগঞ্জের ভৈরব থেকে ২৬ লাখ ৮ হাজার ৭০০ টাকা সমমূল্যের বিদেশি মুদ্রাসহ এক ট্রেনযাত্রীকে আটক করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা আন্তনগর কালনী এক্সপ্রেস ট্রেন থেকে তাঁকে আটক করে রেলওয়ে পুলিশ।

আটক হওয়া ব্যক্তির নাম রাসেল শেখ (২৩)। তিনি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ার দিদার হোসেনের ছেলে।

ভৈরব রেলওয়ে পুলিশ জানায়, দুপুর সোয়া ১২টার দিকে কালনী ট্রেনটি ভৈরব স্টেশনে যাত্রাবিরতি দেয়। এই সময় রেলওয়ে পুলিশের সদস্যদের বিভিন্ন বগিতে তল্লাশি চালাতে দেখে রাসেল শেখ দ্রুত কামরা থেকে নেমে পড়েন। এতে পুলিশের সন্দেহ হয়। পুলিশ তাঁর দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করে। কিন্তু রাসেল পুলিশকে এড়িয়ে প্ল্যাটফর্ম ছেড়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। তখন পুলিশ রাসেল শেখের পিছু নিয়ে কিছুটা দূরে গিয়ে ধরে ফেলেন। পরে তাঁর শরীর তল্লাশি করে পায়ে ও জুতার ভেতরে বিদেশি মুদ্রা পায়।

উদ্ধার হওয়া মুদ্রার মধ্যে সৌদি রিয়াল ৫০ হাজার এবং ইংল্যান্ডের পাউন্ড রয়েছে ১৪ হাজার ১০০। এই ঘটনায় রেলওয়ে পুলিশ বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

ভৈরব রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফেরদৌস আহমেদ বলেন, রাসেল শেখকে থানা হেফাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এই অর্থ কোনো জঙ্গি সংগঠনের প্রয়োজনে বহন করা হচ্ছিল কি না, জিজ্ঞাসাবাদে বিষয়টি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

তবে থানা হেফাজতে রাসেল শেখ গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন, কিছুদিন আগে ঢাকার মহাখালী এলাকায় বসবাসকারী আমিনুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয়। মূলত, ওই পরিচয়ের সূত্র ধরে ব্যবসায়িক সম্পর্ক গড়ে ওঠে। আমিনুল ইসলামের পরামর্শে তিনি সিলেট যান এবং এক ব্যক্তির কাছ থেকে এসব বিদেশি মুদ্রা বুঝে নেন। তাঁর দায়িত্ব ছিল মুদ্রাগুলো আমিনুল ইসলামকে হাতে পৌঁছে দেওয়া। বিনিময়ে তাঁকেও আর্থিক সুবিধা দেওয়ার কথা ছিল। রাসেল শেখের দাবি, তাঁর জানামতে বিদেশি টাকা লেনদেনের আমিনুল ইসলামের লাইসেন্স রয়েছে।

তবে মুঠোফোন বন্ধ থাকায় চেষ্টা করেও আমিনুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। ঘটনার পর আমিনুল ইসলাম থানার কারও সঙ্গে কিংবা রাসেল শেখের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেননি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন