টানা অবরোধে স্থবির বগুড়ার ফুলের বাজার বসন্তের প্রথম দিন থেকেই চাঙা হয়ে উঠেছে। গত শুক্রবার পয়লা ফাল্গুন ও গতকাল শনিবার ভালোবাসা দিবসে শহরের শহীদ খোকন পার্কসংলগ্ন ফুল মার্কেটের দোকানগুলো ছিল জমজমাট। মার্কেটের অর্ধশত দোকানে দুই দিনে প্রায় ২০ লাখ টাকার ফুল নিমেষেই ফুরিয়ে গেছে। চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় ৩ টাকা দামের লাল গোলাপের দাম এক লাফে ২০ টাকায় উঠেছে।
ব্যবসায়ীরা বলছেন, ভালোবাসা দিবস সামনে রেখে চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় যশোরের পাইকারি মোকামে সব ধরনের ফুলের দাম কয়েক গুণ বেড়েছে। অবরোধের কারণে বেড়েছে পরিবহন খরচও। এতে করে দুই দিন আগের ৩ টাকার লাল গোলাপ এক লাফে ২০ টাকায় এবং ১৫ টাকা দামের জারবেরা ৩০ টাকায় উঠেছে।
গতকাল দুপুরে শহরের ফুল মার্কেটে গিয়ে দেখা গেছে, প্রতিটি দোকানে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়। ক্রেতাদের বেশির ভাগই বয়সে তরুণ-তরুণী এবং স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী। দেখা মিলেছে নবদম্পতিদেরও। ৩ টাকার লাল গোলাপের দাম দোকানিরা ২০ টাকা হাঁকায় কেউ কেউ ক্ষোভও প্রকাশ করেছেন।
ব্যবসায়ীরা জানান, বগুড়া শহরের এই ফুল মার্কেটে ২৭টি স্থায়ী দোকান রয়েছে। অস্থায়ী দোকান রয়েছে ২০টিরও বেশি। বাজারের দোকানগুলোতে ফুল আসে যশোরের গদখালী বাজার থেকে। কিন্তু টানা অবরোধে পণ্য পরিবহন ভেঙে পড়ায় এবং বাজারে ক্রেতা না থাকায় অবরোধের পর থেকেই ফুল ব্যবসায় মন্দা। তবে বসন্ত উৎসব ও ভালোবাসা দিবসে ব্যবসায় এই মন্দা ভাব কেটে যায়।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অন্য সময়ে চায়না জাতের প্রতিটি লাল গোলাপ ৩ টাকায় বিক্রি হতো। এখন সেই গোলাপের দাম ২০ থেকে ২৫ টাকা, ৫ টাকার লাল ও সাদা গ্লাডিওলাস ১৫ টাকা, গুচ্ছ করা বুকেট ৪০ টাকার স্থলে ১০০ টাকা, মোড়কে মোড়ানো ২০ টাকার গোল প্যাকেট এখন ৫০, ২০ টাকার জারবেরা এখন ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সবচেয়ে বেশি বিক্রি হচ্ছে লাল গোলাপ।
ফুল কিনতে আসা কলেজছাত্রী প্রিয়ন্তি সানজানা বলেন, ‘ভালোবাসা দিবসে বন্ধুকে শুভেচ্ছা জানাতে ফুল কিনতে এসেছি। সব কটি ফুল তিনটি করে কেনার ইচ্ছে ছিল। এখন দাম শুনে একটা করে কিনেছি।’
লাল গোলাপ কিনতে আসা শাহেদ শিশির বলেন, ভালোবাসার লাল গোলাপ কিনতে এসে দাম শুনে বুকের ভেতরে কাঁটা বিধার মতো অবস্থা। ১০০ টাকা হলে এক গুচ্ছ ফুল উপহার দেওয়া যেত, এখন সেখানে ৩০০ টাকা দিয়েও হচ্ছে না।
সোহান ফুলঘরের উজ্জ্বল প্রামাণিক বলেন, অবরোধ-হরতালের দিনে ২০০টি লাল গোলাপও বিক্রি হয়নি, অথচ গত দুই দিনে গড়ে দুই হাজারেও বেশি ফুল বিক্রি করেছি।’
লাভলী ফুলঘরের বাবলু শেখ বলেন, ভালোবাসা দিবস ঘিরে যশোরের গদখালী পাইকারি মোকামেই ফুলের দাম কয়েক গুণ বেড়েছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন