বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এক রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে গত ২৫ জানুয়ারি হাইকোর্টের একই বেঞ্চ রুলসহ আদেশ দিয়েছিলেন। ওই জেলাগুলোতে থাকা সব অবৈধ ইটভাটার কার্যক্রম সাত দিনের মধ্যে বন্ধের ব্যবস্থা নিতে তিন জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট বিবাদীদের প্রতি নির্দেশ দেওয়া হয়। নির্দেশনা বাস্তবায়ন বিষয়ে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়। এ ছাড়া সেখানকার লাইসেন্সবিহীন সব ইটভাটার তালিকা ছয় সপ্তাহের মধ্যে আদালতে দাখিল করতেও নির্দেশ দেওয়া হয়। এর ধারাবাহিকতায় আজ বিষয়টি আদালতে ওঠে।

মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ (এইচআরপিবি) ওই রিট করে। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।

পরে আইনজীবী মনজিল মোরসেদ প্রথম আলোকে বলেন, ইটভাটার কার্যক্রম বন্ধের বিষয়ে তিন জেলার জেলা প্রশাসকের পাঠানো তালিকা হলফনামা আকারে রাষ্ট্রপক্ষ আদালতে দাখিল করেছে। অবৈধ ইটভাটা কতগুলো আছে, সেই তালিকা আসেনি। আদালত ৯ মার্চ পূর্ণাঙ্গ তালিকা দাখিল করতে নির্দেশ দিয়েছেন। অবৈধ ইটভাটা বন্ধসহ পরিবেশের মারাত্মক ক্ষতি বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নিশ্চিত করতেও বলেছেন হাইকোর্ট।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন