default-image

ইন্দোনেশিয়ায় অনুষ্ঠেয় ১৩তম আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডে যোগ দেবে বাংলাদেশের ছয় খুদে বিজ্ঞানী। বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করতে এই মহাযজ্ঞে যাবে সারা দেশ থেকে বাছাই করা ছয় কৃতী শিক্ষার্থী। আগামী ২ ডিসেম্বর উদ্বোধনী পর্বের মাধ্যমে শুরু হবে ১৩তম আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড ২০১৬।

শিক্ষার্থীরা হলো ফারদিম মুনির (স্যার জন উইলসন স্কুল অ্যান্ড কলেজ), তাহমিদ মোসাদ্দেক (নটর ডেম কলেজ), এ কে এম সাদমান মাহমুদ আবির (পাবনা জিলা স্কুল), নিহাল জুহায়ের পরশ মিয়াজী (কুমিল্লা জিলা স্কুল), আহমেদ নাফিস ফারহান (নাসিরাবাদ সরকারি উচ্চবিদ্যালয়), মিরাজ আহমেদ সাদি (বিএএফ শাহীন ইংলিশ স্কুল)।

ছয় প্রতিযোগীর দলনেতা হিসেবে আছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ফারসীম মান্নান মোহাম্মাদী। উপনেতা হিসেবে দলের সঙ্গে থাকবেন বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতির সহকারী একাডেমিক কো-অর্ডিনেটর মো. জুনায়িদুল ইসলাম এবং বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশনের প্রোগ্রাম অফিসার মো. মোরশেদ আলম।

বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি খুদে এ বিজ্ঞানযোদ্ধাদের সবার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতে আজ মঙ্গলবার বিকেলে হোটেল সোনারগাঁওয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশনের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ও ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের উপাচার্য অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী খুদে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন। অলিম্পিয়াডের নানা বিষয় তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘আমি আশা করি, ছয় শিক্ষার্থী সোনা জয় করবে।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট বিজ্ঞানী রেজাউর রহমান, আল-আরাফা ইসলামী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. হাবিবুর রহমান, উপব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী তৌহিদুল আলম, বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক সাজ্জাদুর রহমান চৌধুরী, বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতির সহসভাপতি মুনির হাসান, কোষাধ্যক্ষ বায়েজিদ ভূঁইয়া প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এ বছর ২৭ আগস্ট বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড (বিডিজেএসও) আয়োজনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় আন্তর্জাতিক জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াড। সারা দেশের প্রায় ৪০০ শিক্ষার্থী এতে অংশ নেয়। বাংলাদেশ জুনিয়র অলিম্পিয়াড থেকে জুনিয়র ও সেকেন্ডারি ক্যাটাগরির সেরা ৪০ জন শিক্ষার্থী নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় বিডিজেএসও ক্যাম্প। পরবর্তী সময়ে জাতীয় ক্যাম্প ও আইজেএসও নির্বাচনী ক্যাম্পের ফলাফলের ভিত্তিতে বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতির একাডেমিক দল ছয় সদস্যের বাংলাদেশ দল সুপারিশ করে।

প্রতিবারের মতো এবারও বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি ও বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশন যৌথভাবে বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের আয়োজন করে। পৃষ্ঠপোষক হিসেবে রয়েছে আল-আরাফা ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0