৯৯৯-এ ফোন, নির্যাতন থেকে বাঁচলেন অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ

বিজ্ঞাপন
default-image

জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছেন অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ ঈশিতা আক্তার (২৩)। যৌতুকের দাবিতে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাঁকে মারতে শুরু করলে ৯৯৯ নম্বরে ফোন দেন তিনি। এরপর পুলিশ এসে তাঁকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল সোমবার রাতে নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার মাগুরা ইউনিয়নের সিঙ্গেরগাড়ি গ্রামে। গৃহবধূ ঈশিতা একই উপজেলার বাহাগিলি ইউনিয়নের কবিরাজপাড়া গ্রামের মশিয়ার রহমানের মেয়ে।

ওই গৃহবধূ বলেন, তিন বছর আগে সিঙ্গেরগাড়ি গ্রামের আশিকুর রহমানের (২৮) সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই চার লাখ টাকা যৌতুক চেয়ে স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকেরা তাঁর ওপর নির্যাতন করে আসছিলেন। গতকাল সোমবার রাতেও শ্বশুরবাড়ির লোকেরা তাঁকে মারধর শুরু করেন। একপর্যায়ে দৌড়ে প্রতিবেশীর বাড়িতে ঢুকে ৯৯৯-এ ফোন করে নির্যাতনের ঘটনা জানান। এরপর পুলিশ এসে তাঁকে কিশোরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

কিশোরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুন-অর-রশীদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘৯৯৯ থেকে ফোন পেয়ে আমরা তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে গিয়ে গৃহবধূকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করাই। এ ঘটনায় গৃহবধূর বাবা মশিয়ার রহমান থানায় অভিযোগ করেছেন। তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন