default-image

বিশ্বের বসবাসের অযোগ্য শহরগুলোর তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে আছে রাজধানী ঢাকা। বসবাসযোগ্যতার দিক দিয়ে ১৪০টি শহরের মধ্যে ঢাকার অবস্থান এখন ১৩৮তম। ঢাকার চেয়ে খারাপ অবস্থা কেবল যুদ্ধবিধ্বস্ত শহর সিরিয়ার দামেস্ক ও নাইজেরিয়ার রাজধানী লাগোস।

যুক্তরাজ্য থেকে প্রকাশিত বাণিজ্যবিষয়ক প্রভাবশালী সাময়িকী দ্য ইকোনমিস্ট–এর গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইকোনমিক ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (সিপিইউ) গতকাল বুধবার এ তালিকা প্রকাশ করেছে। ‘গ্লোবাল লিভিব্লিটি ইনডেক্স’ শীর্ষক এ তালিকায় আগের বছর ঢাকা শহরের অবস্থান ছিল ১৩৯তম। অর্থাৎ এ বছর ঢাকার অবস্থানে এক ধাপ উন্নতি হয়েছে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ইআইইউ ‘নিরাপদ শহর সূচক-২০১৯’ শীর্ষক একটি তালিকা প্রকাশ করে। বিশ্বের নিরাপদ শহরের এ তালিকায় গতবারের চেয়ে ২ ধাপ এগিয়েছে ঢাকা। এরপরও ৬০ শহরের এ তালিকায় ঢাকার অবস্থান তলানিতেই—৫৬তম।

প্রতিবেদনে বিশ্বে বসবাসের জন্য সবচেয়ে ভালো শহর হিসেবে শীর্ষ রয়েছে অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনা। এরপর রয়েছে অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন ও জাপানের ওসাকা শহর। শীর্ষ ১০টি শহরের মধ্যে তিনটি করে শহর রয়েছে অস্ট্রেলিয়া ও কানাডার। বসবাসের অযোগ্য শীর্ষ ১০ শহরের মধ্যে ঢাকার পরেই রয়েছে আরেক যুদ্ধবিধ্বস্ত শহর লিবিয়ার ত্রিপোলি ও পাকিস্তানের করাচি। 

বসবাসের যোগ্যতার দিক থেকে শহরগুলোর মোট ছয়টি বিষয়কে সূচকে আমলে নেওয়া হয়। এর জন্য মোট ১০০ নম্বর ঠিক করা হয়। এর মধ্যে ঢাকা পেয়েছে ৩৯ দশমিক ২ নম্বর। এর মধ্যে শহরের স্থিতিশীলতার দিক থেকে ৫৫, স্বাস্থ্যসেবায় ২৯ দশমিক ২, সংস্কৃতি ও পরিবেশে ৪০ দশমিক ৫, শিক্ষায় ৪১ দশমিক ৭ এবং অবকাঠামোতে ২৬ দশমিক ২ নম্বর পেয়েছে ঢাকা। 

দক্ষিণ এশিয়ার অন্য শহরগুলোর মধ্যে ভারতের শহরগুলোর অবস্থার অবনতি সবচেয়ে বেশি হয়েছে। গত বছরের সূচক থেকে অবনতি হয়ে ভারতের দিল্লির অবস্থান ১১২ থেকে ৬ ধাপ কমে ১১৮তম ও মুম্বাই ১১৭তম থেকে ২ ধাপ পিছিয়ে ১১৯তম অবস্থানে নেমে গেছে। ওই দুই শহরের বায়ুদূষণ ও পানির সংকট চলতি বছর তীব্রতর হয়েছে। ফলে সেখানকার বসবাসের অবস্থার আরও অবনতি হয়েছে। তবে ওই প্রতিবেদনে রাশিয়ার মস্কো, সার্বিয়ার বেলগ্রেডের অবস্থার উন্নতি সবচেয়ে বেশি হয়েছে। 

অন্যদিকে বিশ্বে বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলো এ তালিকায় নিচের সারিতেই রয়েছে। এর মধ্যে যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডন রয়েছে ৪৮তম স্থানে আর যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ শহর নিউইয়র্ক রয়েছে ৫৮তম অবস্থানে। 

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0