দুর্নীতিবাজদের নামের তালিকা প্রকাশ ও তাদের শাস্তির দাবিতে দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। এই কর্মসূচি শেষে মঞ্চের নেতা-কর্মীদের একটি মিছিল দুদক কার্যালয় ঘেরাও করার উদ্দেশ্যে শাহবাগের দিকে যেতে থাকে। মিছিলটি শাহবাগে জাতীয় গণগ্রন্থাগারের সামনে পৌঁছালে পুলিশ বাধা দেয়। পরে মঞ্চের চার সদস্যের একটি প্রতিনিধিদলকে পুলিশ দুদকের কার্যালয়ে নিয়ে যায়। প্রতিনিধিদলে ছিলেন মঞ্চের উপদেষ্টা ও ভাস্কর্যশিল্পী রাশা, সাধারণ সম্পাদক আল মামুন, সহসভাপতি মাকসুদ হাওলাদার ও শাহীন মাতবর।

এর আগে রাজু ভাস্কর্যের প্রতিবাদ সমাবেশে ভাস্কর্যশিল্পী রাশা বলেন, কানাডার বেগমপাড়াসহ বিদেশে অর্থ পাচারকারী দুর্নীতিবাজেরা এখন নব্য রাজাকারে পরিণত হয়েছে। এরা বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রার ধারা ব্যাহত করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে।

মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বলেন, লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশে দুর্নীতিবাজদের কোনো ঠাঁই হবে না। এদের চিহ্নিত করে দ্রুত আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।

মঞ্চের সম্পাদক আল মামুন বলেন, দুদককে আরও কার্যকর ভূমিকা পালন করতে হবে। লোকদেখানোর জন্য শুধু চুনোপুঁটিদের ধরলেই হবে না, রাঘব বোয়ালদেরও আইনের আওতায় আনতে হবে। যেসব দুর্নীতিবাজ আমলা, রাজনীতিবিদ ও ব্যবসায়ী অর্থ পাচার করেছে, দুদককে তাদের নামের তালিকা আগামী সাত দিনের মধ্যে জাতির সামনে প্রকাশ করতে হবে। তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিও নিশ্চিত করতে হবে। তা না হলে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ দেশব্যাপী কঠোর কর্মসূচি পালন করবে।