বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রায় সারা দিন নিউমার্কেট–সংলগ্ন মিরপুর সড়ক বন্ধ থাকায় অন্য সড়কে অতিরিক্ত যানবাহনের চাপ পড়ে। যানবাহনের চাপ সবচেয়ে বেশি ছিল কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভিনিউতে।

যানজট মূল সড়ক থেকে অলিগলিতেও ছড়িয়ে পড়েছিল। এ সময় শত শত মানুষকে হেঁটে গন্তব্যে পৌঁছাতে দেখা গেছে। এমনকি ইফতারের সময়ও যাত্রীদের রাস্তায় আটকে থাকতে দেখা গেছে।

বেল দেড়টার দিকে তীব্র যানজট ছিল ফার্মগেট ও এর আশপাশের এলাকাতে। এই সময় খামারবাড়ির সামনে আটকে ছিলেন আক্কাস আলী। তিনি জানান, গাবতলী এলাকার একটি মাদ্রাসায় তিনি চাকরি করেন। মাদ্রাসার কাজে পল্টনে যাওয়ার জন্য গাবতলী থেকে বাসে উঠেছিলেন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে। কিছু দূর আসার পর তিনি যানজটে আটকে যান। প্রায় তিন ঘণ্টায় তিনি খামার বাড়ি পর্যন্ত আসতে পেরেছেন।

চাকরিপ্রত্যাশী ফারজানা নীলা মোহাম্মদপুরের তাজমহল রোড থেকে বেলা পৌনে ১১টার দিকে নীলক্ষেতের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেন। সিএনজিচালিত অটোরিকশায় যাওয়ার পথে জিগাতলায় যানজটে আটকা পড়েন। তিনি জানতে পারেন মিরপুর রোডে যানচলাচল বন্ধ। পরে বেলা দেড়টার দিকে তিনি বাসায় ফিরে যান। ফারজানা জানিয়েছেন, বাইরে পড়তে যাওয়ার জন্য তিনি কলেজ থেকে সনদ তুলতে যাচ্ছিলেন।

মিরপুর সড়ক বন্ধ থাকায় বিকল্প সড়কে যানবাহন চলাচল বেড়ে যায়। একপর্যায়ে অলিগলিতেও যানজট দেখা দেয়। দুপুরে কল্যাণপুর, মোহাম্মদপুর, আসাদগেটসহ বিভিন্ন এলাকার গলিতেও যানজট দেখা গেছে। মোহম্মদপুরের মোহাম্মদীয়া হাউজিং লিমিটেড এলাকার বাসিন্দা আবদুল হামিদ জানিয়েছেন, গলির ভেতর এমন যানজট তিনি আগে দেখেননি। মোহাম্মদপুর থেকে মোটরসাইকেলে কারওয়ান বাজার আসতে তাঁর প্রায় দুই ঘণ্টা সময় লেগেছে।

মিরপুর রোডের সব যানবাহনই কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভিনিউ হয়ে চলাচল করছে। এতে স্বাভাবিকভাবেই এই সড়কে যানবাহনের চাপ ব্যাপক বেড়েছে।
মতিউর রহমান, সার্জেন্ট, ট্রাফিক পুলিশ

বেলা তিনটার দিকে সোনারগাঁও মোড়ে কথা হয় ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট মতিউর রহমানের সঙ্গে। প্রথম আলোকে তিনি বলেন, মিরপুর রোডের সব যানবাহনই এখন কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভিনিউ হয়ে চলাচল করছে। এতে স্বাভাবিকভাবেই এই সড়কে যানবাহনের চাপ ব্যাপক বেড়েছে।

বেলা সাড়ে তিনটার দিকে এই মোড়ে কথা হয় মোটরসাইকেলচালক শহীদ উদ্দিনের সঙ্গে। পল্টন থেকে তিনি এসেছেন, যাবেন উত্তরা। তিনি বলেন, পল্টন থেকে শাহবাগ পর্যন্ত আসতে তিনি তেমন যানজট পাননি। তবে শাহবাগ থেকে সোনারগাঁও মোড় পর্যন্ত ব্যাপক যানজট পেয়েছেন। অসহনীয় যানজটের কারণে তাঁর সঙ্গে থাকা এক বন্ধু মোটরসাইকেল থেকে নেমে হেঁটে পান্থপথ এলাকায় গেছেন।

এই সময় সোনারগাঁও মোড়ের পান্থপথ অংশে যানজটে আটকে ছিল বিআরটিসির একটি বাস। বাসটির চালক আল-আমিন প্রথম আলোকে বলেন, বিআরটিসির কল্যাণপুর ডিপো থেকে বাসটি নিয়ে তিনি বেলা দুইটার দিকে বের হন। পান্থপথ আসতে প্রায় দেড় ঘণ্টা লেগেছে। তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের স্টাফদের নিয়ে তিনি সাভার যাবেন। পরে সন্ধ্যায় মুঠোফোনে আল-আমিন প্রথম আলোকে জানান, বিকেল পাঁচটার দিকে তিনি সাভার পৌঁছেছেন। গাবতলীর পর থেকে তেমন যানজট ছিল না। কিন্তু পান্থপথ থেকে ধানমন্ডি ২৭ নম্বর পর্যন্ত আসতে অনেক সময় লেগেছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন