বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলনে সিটিটিসির প্রধান মো. আসাদুজ্জামান জানান, বছর কয়েক আগে হাসিবুর আনসার আল ইসলাম ও আল–কায়েদার মতাদর্শ সমর্থন করে লেখালেখি শুরু করেন। তিনি গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থা, সংবিধান, রাষ্ট্র পরিচালনার মূলনীতিবিরোধী ও উসকানিমূলক বক্তব্য প্রচার শুরু করেন। বিভিন্ন ব্যক্তিকে জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ করার পাশাপাশি তাঁদের সশস্ত্র জিহাদে উদ্বুদ্ধ করতেন তিনি।

সিটিটিসি জানায়, হাসিবুরের বাড়ি পটুয়াখালীর মহিপুরে। বাবার নাম হাবিবুর রহমান। হাসিবুর মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির এলএলবি (সম্মান) প্রথম বর্ষের ছাত্র।

হাসিবুরকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে সিটিটিসি প্রধান আসাদুজ্জামান জানান, তিনি (হাসিবুর) ২০১৬ সালে এসএসসি পাস করে ঢাকায় অধ্যয়নকালে জঙ্গিবাদী আদর্শে দীক্ষিত হন। তিনি আনসার আল ইসলাম ও আল-কায়েদার মতবাদ প্রচারকারী দুটি আইডির সঙ্গে যুক্ত হন। ২০১৯ সালে তিনি নিজেই ‘আযম আল গালিব’ নামে আইডি খোলেন। এ নামে টেলিগ্রাম ও ফেসবুকে লেখালেখি শুরু করেন। পাশাপাশি তিনি ফেসবুকে আরেকটি পেজ খুলে দাওয়াতি কার্যক্রম চালাতেন। বিভিন্ন সময় উগ্রবাদী মতাদর্শ ছড়ানোর জন্য তাঁর একাধিক ফেসবুক আইডি ‘ডিজেবল’ হয়।

আসাদুজ্জামান জানান, কারাগারে থাকা আনসার আল ইসলামের সদস্যদের জামিনের জন্য হাসিবুর গোপনে অর্থ সংগ্রহ করতেন। এ অর্থ তাঁদের পরিবারের সদস্যদের কাছে পৌঁছে দিতেন তিনি।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন