বিজ্ঞাপন

তুরাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহাদী হাসান প্রথম আলোকে বলেন, পুলিশের কাছে খবর ছিল ‘কিশোর গ্যাংয়ের’ এক সদস্য অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে উত্তরার একটা বাসায় আছে। পরে সেখানে অভিযান চালিয়ে মকবুলকে গ্রেপ্তার করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে, মকবুল ভাড়াটে সন্ত্রাসী। টাকার বিনিময়ে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ চালিয়ে থাকেন।

default-image

তুরাগ থানার উপপরিদর্শক মো. নাফিজ মেহেদী মকবুলকে গ্রেপ্তার করেন। তিনি জানান, মকবুলের পরিবার কামরাঙ্গীরচরে থাকে। তিনি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন বলে পরিবারকে জানিয়েছেন। উত্তরার এই ফ্ল্যাট মাস দুয়েক আগে ভাড়া নিয়েছেন। তাঁর আরও দুই সহযোগী আছে।

অস্ত্র আছে এমন খবরে বাসায় অভিযান চালনার পর তাঁর তোশকের নিচ থেকে ছোরা, রামদা উদ্ধার করা হয়। এগুলো কেন জড়ো করেছেন তার কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি মকবুল। তাঁর দুই সহযোগীকে পাওয়া যায়নি। তাঁরা ঈদে বাড়ি গেছেন বলে জানিয়েছেন মকবুল। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন