default-image

ঢাকায় নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত নাওকি আইটিও বলেছেন, করোনা–পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশে বিনিয়োগ বাড়াবে জাপান। আজ রোববার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে এ কথা বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

ইহসানুল করিম জানান, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীকে জাপানি রাষ্ট্রদূত বলেন, নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার অর্থনৈতিক অঞ্চল আগামী বছরের মধ্যে চালু হবে। এর বাইরে চট্টগ্রামের মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল হবে এ দেশে জাপানের দ্বিতীয় বৃহত্তম বিনিয়োগ হাব। করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ার পর বাংলাদেশে আরও বিনিয়োগ করবে জাপান।

কোভিড-১৯ মহামারির মধ্যেও মাতারবাড়ী প্রকল্পের কাজ এগিয়ে চলছে বলে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীকে জানান জাপানি রাষ্ট্রদূত। তিনি আরও বলেন, মাতারবাড়ী একটি শিল্পকেন্দ্র হবে এবং এটি বাংলাদেশের ভাগ্য বদলে দেবে।
এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মাতারবাড়ী প্রকল্পটি চালু হলে এটি বাংলাদেশের অর্থনীতিতে বিরাট অবদান রাখবে।

বিজ্ঞাপন

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনালের নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার পর তা পরিচালনায় বাংলাদেশ–জাপানের যৌথ অংশগ্রহণের বিষয়ে তাঁর আগ্রহের কথা জানান।

বৈঠকে জাপানের রাষ্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রীর কাছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগার একটি বার্তা হস্তান্তর করেন। এ সময় তিনি ১৯৭৩ সালে জাপানে বঙ্গবন্ধুর সফরের ওপর নির্মিত ‘ওয়েলকাম বঙ্গবন্ধু (১৯৭৩)’ শিরোনামে একটি ভিডিও ডকুমেন্টারি হস্তান্তর করেন।

শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বার্তা ও ভিডিও ডকুমেন্টারি পাঠানোর জন্য জাপানের প্রধানমন্ত্রীকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।
বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমাদ কায়কাউস উপস্থিত ছিলেন।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন