default-image

অনেক দ্বিধা-সংকটের দোলাচল শেষে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে বাংলা একাডেমির অমর একুশের বইমেলা। মেলার মেয়াদ বরাবরের মতো এক মাসই থাকবে। তবে এর মধ্যে করোনা পরিস্থিতির যদি গুরুতর রকম অবনতি ঘটে, সে ক্ষেত্রে মেলা চালুর রাখার বিষয়ে অপ্রিয় কঠিন সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে বলে জানিয়ে দিয়েছেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

আজ মঙ্গলবার সকালে বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে অমর একুশে বইমেলা-২০২১ নিয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে বাংলা একডেমি। এতে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে এবার ফেব্রুয়ারিতে মেলা করা যায়নি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে মার্চে মেলা করা হচ্ছে। সময় পিছিয়ে গেলেও মেলার অনুষ্ঠান, পুরস্কারসহ অন্য সবকিছু আগের মতোই থাকবে। তবে জীবনের মূল্য সব থেকে বেশি। তাই পরিস্থিতি যদি মেলা চালিয়ে যাওয়ার মতো না থাকে, তবে অপ্রিয় সিদ্ধান্ত নিতে হতে পারে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্যবিধি এবং নিরাপত্তার ব্যাপারে একাডেমির পক্ষ থেকে সম্ভব সব রকম ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। যাঁরা মেলায় আসবেন তাঁদের কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৮ মার্চ বেলা ৩টায় গণভবন থেকে ভার্চ্যুয়ালি বইমেলার উদ্বোধন করবেন। তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের লেখা ‘আমার দেখা নয়াচীন’ বইটির ইংরেজি অনুবাদের ‘নিউ চায়না ১৯৫১’ বইটির মোড়ক উন্মোচন করবেন। এবারে মেলার মূল থিম ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী’। মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের প্রতি মেলা উৎসর্গ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

মেলার অবকাঠামো নির্মাণের কাজ দ্রুত এগোচ্ছে। একাডেমির মাঠজুড়ে শ্রমিকদের স্টল তৈরিতে ব্যস্ত দেখা গেল। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেও অবকাঠামো নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। স্টল ও প্যাভেলিয়নগুলোর সাজসজ্জা, ভেতর পথ তৈরি, এসবের কাজ চলছে এখানে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভিড় এড়ানোর জন্য এবার মেলার পরিসর গতবারের চেয়ে প্রায় দেড়গুণ বাড়ানো হয়েছে। এবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মেলার আয়তন ১৫ লাখ বর্গফুট। উভয় অংশ মিলিয়ে এবার ৫৪০টি প্রতিষ্ঠানকে ৮৩৪ ইউনিট স্টল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। মেলা চলবে আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত।

বরাবরের মতোই বেলা সাড়ে তিনটা থেকে রাত সাড়ে আটটা পর্যন্ত এবং শুক্র ও শনিবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত মেলা খেলা থাকবে।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী, মেলা কমিটির সদস্যসচিব জালাল আহমেদ, স্থপতি এনামুল করিম নির্ঝর, বিকাশ লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক তাহমিদুর রহমান, ক্রস কমিউনিকেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ মারুফ, সঞ্চালনা করেন একাডেমির পরিচালক অপরেশ কুমার ব্যানার্জি।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন