default-image

‘নিয়মিত কর পরিশোধ করেন, আমি আপনাদের মিষ্টি খাওয়াব। আর যদি কর না দেন, তাহলে জরিমানা খেতে হবে।’

এ কথা বলেছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম। তিনি আজ মঙ্গলবার সকালে গুলশানে সিটি করপোরেশনের অনুমোদনহীন বিলবোর্ড, সাইনবোর্ড ইত্যাদি উচ্ছেদ অভিযানে  এই কথা বলেন।

মেয়র বলেন, এই শহরকে আমরা পরিষ্কার করতে চাই। আমার দায়িত্ব, ঢাকা শহরকে পরিষ্কার রাখা। জনগণ এ জন্যই আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে। তিনি বলেন, অনেকে নিজের স্বার্থে, সবার স্বার্থকে জলাঞ্জলি দিচ্ছেন। অনেকে প্রজেক্ট সাইন, ব্যানার, সাইনবোর্ড ইত্যাদি দিয়ে লিখে ব্যবসা করছেন। ব্যবসা করেন, ভালো কথা, কিন্তু সেটারও ট্যাক্স দিতে হবে।

বিজ্ঞাপন
default-image

সকালে ডিএনসিসির নগর ভবনের সামনে থেকে অনুমোদনহীন বিলবোর্ড, সাইনবোর্ড উচ্ছেদে অভিযান শুরু করা হয়। শুরুতেই আমিন মোহাম্মদ গ্রুপের বিশালাকার দুটি বিলবোর্ড ভাঙা হয়। পরে গুলশান-২ চত্বর সংলগ্ন বেশ কয়েকটি ভবনের বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের অনুমোদনহীন সাইনবোর্ড, লাইট বোর্ড প্রভৃতি উচ্ছেদ করা হয়। এর মধ্যে ছিল প্রিমিয়াম সুইটস, এলজি ইলেকট্রনিকস, টাচি লাইটিং, বিএসবি গ্লোবাল নেটওয়ার্ক, প্যানাসনিক।

অভিযান চলাকালে জনতা ব্যাংক তাদের ব্যবহৃত সাইনবোর্ড বাবদ ২৯ হাজার নগদ টাকা ব্যাংকে পে-অর্ডার করেন।  এ ছাড়া আল-মদিনা ফার্মেসি নামের একটি ওষুধ বিক্রির দোকান অভিযানের আগের দিন স্বেচ্ছায় সিটি করপোরেশনে গিয়ে তাদের কর পরিশোধ করে। অভিযানের সময় আল-মদিনার মালিককে মেয়র মিষ্টি খাইয়ে দেন।
অভিযানে ডিএনসিসি প্রধান নির্বাহী সেলিম রেজা, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আবদুল হামিদ মিয়াসহ অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। উত্তর সিটির ১০ অঞ্চলে এই উচ্ছেদ অভিযান একযোগে পরিচালিত হচ্ছে।

মন্তব্য পড়ুন 0