default-image

রাজধানীর কলাবাগানে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা মামলায় তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নতুন দিন ঠিক করেছেন আদালত। আগামী ৭ এপ্রিল পুলিশকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলেছেন আদালত। আজ রোববার ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট বেগম ইয়াসমিন আরা এ আদেশ দেন।  
পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ আদেশ দিয়েছেন আদালত। আদালত–সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, এই মামলায় আজ রোববার প্রতিবেদন জমা দেওয়ার দিন ছিল। তবে কলাবাগান থানা-পুলিশ প্রতিবেদন জমা দেওয়ার জন্য আরও ৩০ দিন সময় চেয়ে আদালতে আবেদন করে। নিহতের ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন এবং ফরেনসিক প্রতিবেদন না পাওয়ায় তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার জন্য সময় চেয়ে আবেদন করে পুলিশ। পরে আদালত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নতুন দিন ঠিক করেন।

কলাবাগানে ইংরেজি মাধ্যমের ‘ও’ লেবেলের ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা মামলার একমাত্র আসামি তানভীর ইফতেখার দিহান গত ৮ জানুয়ারি আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি দেন। এরপর থেকে আসামি দিহান কারাগারে।

কলাবাগানের ওই স্কুলছাত্রীকে (১৭) ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে দিহানকে আসামি করে কলাবাগান থানায় মামলা করেন নিহত শিক্ষার্থীর বাবা।

বিজ্ঞাপন

নিউমার্কেট অঞ্চলের পুলিশ বলছে, গত ৭ জানুয়ারি দুপুরে ধানমন্ডির আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কলাবাগান থানায় ফোন করে জানায়, মৃত অবস্থায় এক কিশোরীকে হাসপাতালে এনেছেন এক তরুণ। কিশোরীর শরীর থেকে রক্ত বের হচ্ছে। তখন নিউমার্কেট অঞ্চল পুলিশের জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার (এসি) আবুল হাসান ওই তরুণকে আটকে রাখতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেন। এরই মধ্যে কলাবাগান থানার পুলিশ আনোয়ার খান হাসপাতালে গিয়ে ওই তরুণকে আটক করে। খবর পেয়ে তরুণের তিন বন্ধু হাসপাতালে গেলে পুলিশ তাঁদেরও আটক করে।

পুলিশ কর্মকর্তা আবুল হাসান প্রথম আলোকে তখন জানিয়েছিলেন, জিজ্ঞাসাবাদে তানভীর ইফতেখার দিহান নামের ওই তরুণ দাবি করেন, মেয়েটি তাঁর পূর্বপরিচিত। বাসার সবাই ঢাকার বাইরে থাকার সুযোগে কিশোরীকে কলাবাগানের ডলফিন গলিতে তাঁদের দ্বিতীয় তলার ফ্ল্যাটে নিয়ে যান। একপর্যায়ে তাঁদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক হয়। এরপর মেয়েটি অচেতন হয়ে পড়লে তিনি তাকে আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন