গতকাল দিবাগত রাত সাড়ে তিনটার দিকে কামরাঙ্গীরচরের আহসানবাগের একটি বাসায় ইজিবাইকের ব্যাটারির চার্জার বিস্ফোরণে দুই শিশুসহ একই পরিবারের পাঁচজন দগ্ধ হন। দগ্ধ ব্যক্তিদের শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। তাঁদের মধ্যে চারজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল। তাঁদের মধ্যে আজ সকালে দুজন মারা গেলেন।

হাসপাতালে দগ্ধ অবস্থায় চিকিৎসাধীন ইয়াসমিন আক্তারের ভাগনে রায়হান (২৫), আবদুল মতিন ও ইয়াসমিন আক্তারের দুই মেয়ে আয়শা (৫) ও মাইশা (৯)। দুই শিশুর শরীরের ৪০ শতাংশের বেশি দগ্ধ হয়েছে। তাদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। রায়হানের শরীরের ২০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে।

পুলিশ জানায়, আবদুল মতিন ঘুমানোর আগে প্রতিদিন ইজিবাইকের ব্যাটারি চার্জ দেন। গতকাল রাতেও ব্যাটারি চার্জ দিয়ে ঘুমাতে যান। ভোরে সেখান থেকে হঠাৎ করে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এ সময় পাঁচজন দগ্ধ হন। পরে তাঁরা দৌড়ে বাইরে চলে যান। পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন তাঁদের উদ্ধার করে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করেন।