অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত উইনি ইস্টরাউপ পিটারসেন কিশোরীদের সৃজনশীলতা এবং সামাজিক বাধা অতিক্রমের সাহসিকতার প্রশংসা করেন। পাশাপাশি আগামী দিনে এসব কাজে তাঁর দেশ পাশে থেকে উৎসাহিত করবে বলেও জানান। রাষ্ট্রদূত পিটারসেন সমাজের সব মানুষকে পক্ষপাতিত্ব, স্টেরিওটাইপ ও বৈষম্য বর্জনের লক্ষ্যে একসঙ্গে কাজ করার জন্য স্বাগত জানান।

অনুষ্ঠানে মহিলা পরিষদের সভানেত্রী ফৌজিয়া মোসলেম বলেন, ‘বয়সটি কিশোরদের জীবনে পরিবর্তনের সময়, তারাই পারে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে, আমাদের উপমহাদেশ স্বাধীন হওয়ায় নারীরা জেগে উঠেছে।’

default-image

নারীপক্ষের প্রতিষ্ঠাতা শিরিন হক মনে বলেন, কিশোর-কিশোরীদের ভবিষ্যৎ, আত্মবিশ্বাস ও আত্মসচেতনতা সম্পর্কে সচেতন হতে হবে এবং একটি প্রতিশ্রুতিশীল ভবিষ্যৎ গড়ে তুলতে তারা এগিয়ে যাবে। তিনি শিক্ষাব্যবস্থার ওপরও জোর দেন।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন