default-image

একটু বিস্কুট বা একটু খাবার দিয়ে বেওয়ারিশ কুকুরের প্রতি ভালোবাসার দায়সারা বহিঃপ্রকাশ না করে সেসব কুকুরের পরিপূর্ণ দায়িত্ব নেওয়ার কথা বলেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। তিনি বলেন, বেওয়ারিশ কুকুরপ্রেমীরা যেন এসব পশুকে পোষ্য হিসেবে গ্রহণ করেন এবং পোষ্য প্রাণীর পরিপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন।

মঙ্গলবার বিকেলে নগর ভবনের বুড়িগঙ্গা হলে বেওয়ারিশ কুকুর অপসারণ নিয়ে অভয়ারণ্যসহ কয়েকটি সংগঠন ও ব্যক্তির সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন শেষ ফজলে নূর তাপস।

বিজ্ঞাপন

প্রাণীপ্রেমীদের উদ্দেশে ডিএসসিসির মেয়র বলেন, বেওয়ারিশ কুকুরকে পোষ্য কুকুর হিসেবে গ্রহণ করে পূর্ণ দায়িত্বে নিজ ঘরে নিয়ে যান। নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় পরিপূর্ণ পরিচর্যার ব্যবস্থা নিন। এতে করে নগরবাসীও শান্তি পাবে, সবাই স্বস্তিতে থাকবে, বেওয়ারিশ কুকুরগুলোও নিরাপদ থাকবে।

পথেঘাটে বেওয়ারিশ কুকুর থাকবে কি থাকবে না, এ আলোচনা বেশ কিছুদিন ধরেই চলছে। এ নিয়ে ফেসবুকে লেখালেখি হচ্ছে, পাল্টাপাল্টি মানববন্ধন পর্যন্ত হয়েছে। এক পক্ষের দাবি, রাস্তায় কুকুরের যন্ত্রণায় মানুষ অতিষ্ঠ, সময়-অসময়ে কুকুর মানুষকে তাড়া করে। শহর মানুষের জন্য, কুকুরদের জন্য নয়। অন্য পক্ষের দাবি, শহর থেকে কুকুর তাড়িয়ে দেওয়ার চিন্তা শুধু অমানবিকই নয় বেআইনিও। সড়কে, দেয়ালে পথকুকুরদের (বেওয়ারিশ কুকুর) ছবি এঁকে প্রতিবাদ জানানোর পাশাপাশি ‘প্রাণবিক ঢাকা’ গড়ে তোলার দাবি তাদের।

শহরে কুকুর থাকা না–থাকা নিয়ে দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি অবস্থান প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, একটা আলোচনা বা বৈঠকের মাধ্যমে এই সমস্যার কার্যকর সমাধান হবে না। প্রয়োজনে তাঁরা আবারও বসবেন। বেওয়ারিশ কুকুরের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার জন্য সুপারিশ বা পরামর্শ লিখিত প্রস্তাব আকারে দেওয়ার অনুরোধ করেন তিনি।
শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, ‘পৃথিবীর উন্নত কোনো দেশের উন্মুক্ত সড়কে, পার্কে, খেলার মাঠে বেওয়ারিশ কুকুর পাওয়া যায় না। আমরা ঢাকাকেও সেই পর্যায়ে নিয়ে যেতে চাই। একটি উন্নত শহর হিসেবে গড়ে তুলতে চাই।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন