default-image

লকডাউন চলতে থাকায় একুশে বইমেলায় লোকসমাগম এখন নগণ্য। গতকাল মঙ্গলবার অনেক স্টলে সারা দিনে কোনো বেচাকেনা হয়নি। তবে রোববার কালবৈশাখীর আঘাতে মেলায় যে বিপর্যস্ত অবস্থার সৃষ্টি হয়েছিল, তা কেটেছে। মেরামতের পর স্টলগুলো আবার খুলেছে।

পাঞ্জেরীর বিক্রয় ব্যবস্থাপক নূরুজ্জামান বললেন, তাঁদের যে বিক্রি হয়েছে, তা বলার মতো নয়। এবার তাঁদের ৪০টি নতুন বই এসেছে। সাধারণত ঢাকার বইরে থেকে তাঁদের ক্রেতারা আসেন তালিকা ধরে বই কিনতে। ঢাকার বাইরের বইয়ের দোকানগুলোতে এখন সাধারণত নোট-গাইড ছাড়া সৃজনশীল বই বিশেষ রাখা হয় না। সে কারণে বইমেলার একটি বড় ক্রেতা মফস্বলের পাঠকেরা। এবার লকডাউনের কারণে সেই ক্রেতারা আসতে পারছেন না। এখন দুপুর ১২টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত মেলা করার কোনো অর্থ নেই। শুধু খরচ বাড়ছে।

প্রথমার বই: প্রথমার স্টলে নতুন বই এসেছে মার্কিন তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানী মিচিও কাকুর প্যারালাল ওয়ার্ল্ডস : বিকল্প মহাবিশ্বের বিজ্ঞান ও আমাদের ভবিষ্যৎ। অনুবাদ করেছেন আবুল বাসার। এ বইয়ের মূল বিষয়বস্তু সমান্তরাল মহাবিশ্ব ও স্ট্রিং থিওরি। সঙ্গে আছে আপেক্ষিক তত্ত্ব ও কোয়ান্টাম তত্ত্ব। সরল গদ্যে অনূদিত এ বই বিজ্ঞানে আগ্রহী পাঠকের ভালো লাগবে।

বিজ্ঞাপন

অন্য বই: গতকাল মেলায় নতুন বই এসেছে ২৮টি। উল্লেখযোগ্য বইগুলোর

মধ্যে কথাপ্রকাশ এনেছে মাশরুর আরেফিনের তৃতীয় উপন্যাস আন্ডার গ্রাউন্ড এবং কাব্যগ্রন্থ পরিস্থিতি যেহেতু আগুন হয়ে আছে। নালন্দা এনেছে নওশাদ জামিলের উপন্যাস প্রত্যাবর্তন, শালুক এনেছে ওবায়েদ আকাশের কাব্য নির্জনতা শুয়ে আছে সমুদ্র প্রহরায়, আগামী এনেছে জালাল ফিরোজের বঙ্গবন্ধু: রাষ্ট্রপ্রতিষ্ঠা ও রাষ্ট্রনির্মাণ।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন