বিজ্ঞাপন

গরুর দাম কত

যাঁরা কোরবানি দেবেন, তাঁদের বেশির ভাগই এখন হাটমুখী। হাটগুলোয় ক্রেতার উপস্থিতি সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত। কেউ কেউ যাচ্ছেন পরিবারের সদস্যদের নিয়ে, কেউবা বন্ধুদের নিয়ে। তাঁরা বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখছেন। আকারের সঙ্গে দাম যাচাই করে দেখেন। ব্যাটে-বলে মিলে গেলে কেনা সারা। এরপর হাসিমুখে গরু নিয়ে বাড়ি ফেরা।

default-image

হাট থেকে কেউ যখন গরু নিয়ে ফিরছেন, তখনই চেনা-অচেনা বেশির ভাগেরই প্রশ্ন, ‘ভাই কত নিল?’
রাজধানীর আফতাবনগর হাট থেকে গরু কিনেছেন ব্যবসায়ী আজিজুর রহমান। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমি বাজারে আসি বেলা ১১টায়। টানা তিন ঘণ্টা ঘুরেছি। এরপর ১ লাখ ২২ হাজার টাকা দিয়ে একটা দেশি গরু কিনেছি। গরুর দাম নাগালের মধ্যে রয়েছে।’

default-image

দাম ৫৫ হাজার থেকে ২ লাখ

রাজধানীর আফতাবনগর, শনির আখড়া এবং পুরান ঢাকার ধূপখোলা ও ধোলাইখালের গরুর হাট ঘুরে দেখা গেল, ক্রেতাদের ঝোঁক ছোট ও মাঝারি আকারের গরুর দিকে। ক্রেতারা মূলত ৫৫ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ২ লাখ টাকার গরুগুলো বেশি কিনছেন। তবে বেশির ভাগ গরুর দাম ছিল ৭০ থেকে ৯০ হাজার টাকা।

default-image

শনির আখড়ার গরুর হাট থেকে ৮৫ হাজার টাকায় লাল রঙের একটি গরু কেনেন স্থানীয় বাসিন্দা শহিদুল ইসলাম। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘তিন দিন ধরে হাট ঘুরে দেখেছি। পরে আমার পছন্দের গরুটি আমি কিনতে পেরেছি।’

default-image
default-image

গাজীপুরের ডন

বিশাল দেহের গরুটি দেখতে ভিড় লেগেই আছে। ৪০ মণ ওজনের গরুটির মালিক নাম দিয়েছেন ডন। আফতাবনগর গরুর হাটে আনা গরুটি ‘গাজীপুর ডন’ নামে পরিচিতি পেয়েছে। গরুটির মালিক এখলাস উদ্দিন। তিনি গরুটির দাম হাঁকিয়েছেন ২৫ লাখ টাকা। তবে এখনো কেউ ১০ লাখ টাকার বেশি বলেননি।

default-image

এখলাস উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমার গরুটি বাজারের বড় গরু। দেখার জন্য সবাই ভিড় করছেন। কিন্তু ক্রেতার সংখ্যা কম। আর ক্রেতা যে দাম বলছেন, সেই দামে বিক্রি করা অসম্ভব। যদি ন্যায্যমূল্য না পাই, তাহলে গরুটি বিক্রি করব না।’

default-image
default-image
default-image
রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন