default-image

দ্বিতীয় দিনের মতো আজ শনিবারও চলেছে দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি। তবে দ্বিতীয় দিনে টিকিট প্রত্যাশীদের বেশির ভাগই কাঙ্ক্ষিত মানের বাস, দিন ও সময়ের টিকিট পায়নি। যাত্রীরা বলছেন, কাউন্টার থেকে শুধু বলা হচ্ছে—‘টিকিট নেই, টিকিট নেই’। 

হানিফ, সোহাগ, ঈগল, শ্যামলী, এসআর, ডিপজল, আগমনীসহ প্রায় সব বাস কাউন্টারেই ১৫,১৬ ও ১৭ জুলাই সকালের কোনো টিকিট নেই বলে জানা গেছে। তবে ১৩ জুলাই সকালের এবং ১৭ জুলাই বিকেলের কিছু টিকিট এখনো পাওয়া যাচ্ছে। এ ছাড়া সহজ ডটকমে ১৬ জুলাই বাদে অন্য সময়ে কিছু কিছু টিকিট মিলছে।
হানিফ পরিবহনের মহাব্যবস্থাপক মোশাররেফ হুসাইন প্রথম আলোকে বলেন, দূরের রুটের সব টিকিট প্রথম দিনেই শেষ হয়ে গেছে। এখন তাঁদের কাছে কম দূরত্বের টিকিট রয়েছে। এটা সব দিনেই পাওয়া যাবে। তাঁর মতে, ঈদের ছুটি শুরু হওয়াতে ওই দিনগুলোতে টিকিট নেই।
টিকিট প্রত্যাশীরা অভিযোগ করেছেন, কালোবাজারিরা অধিকাংশ বাসের টিকিট কিনে ফেলায় এখন তাঁরা বিপাকে পড়েছেন। তাঁরা লাইনে দাঁড়ানো অবস্থায় অনেকে বেশি দামে তাঁদের টিকিট দিতে চেয়েছেন। অনেকে কিনেছেনও। তবে গণমাধ্যমের কর্মীদের দেখলেই কালোবাজারে টিকিট বিক্রেতারা পালিয়ে যান।
নাবিল পরিবহনে উত্তরবঙ্গে যেতে টিকিট কাটতে এসেছিলেন আবু হাসান। তিনি বলেন, ১৬ তারিখের টিকিট পেলাম না। কাউন্টার থেকে তাঁকে জানানো হয়েছে—১৬ জুলাই দাঁড়িয়ে যাওয়ার টিকিটও নেই। পরে তিনি একজন কালোবাজারির কাছ থেকে টিকিট কিনেছেন।
গাবতলীর বালুর মাঠে ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটি ছাত্র আমিরুল হাসান কুড়িগ্রামে যাওয়ার টিকিট কিনতে এসেছেন তাঁর শিক্ষকের জন্য। তিনি কথা দিয়ে এসেছেন তাঁর শিক্ষকের জন্য টিকিট নিয়ে আসবেন। কিন্তু কাউন্টারে এসে টিকিট না পাননি তিনি। আমিরুল বলেন, ‘স্যারকে বলেছিলাম টিকিট আনব। কিন্তু এসে দেখলাম টিকিট শেষ। একদিনের মধ্যে কিভাবে টিকিট শেষ হলো! ’
এদিকে রাজধানীর কল্যাণপুরে কোনো কাউন্টারেই শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত (এসি) বাসের কোনো টিকিট নেই। গতকাল শুক্রবার ও আজ শনিবার এসি গাড়ির টিকিট কিনেছে এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। ঢাকা-খুলনা, ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-সিলেট, ঢাকা-রংপুর রুটে মূলত এসি বাসগুলো চলে। পরিবহন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এসি গাড়িগুলোর যাত্রীরা সুনির্দিষ্ট থাকে। এ কারণে তাঁরা এগুলো অগ্রিম বিক্রি করেন না। মূলত ভিআইপি ও এসির নিয়মিত যাত্রীদের কাছে তাঁরা টিকিট বিক্রি করেন।
আগামীকাল রোববার বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শেষ হবে। টিকিট থাকলে পরিবহনগুলোর নিয়মিত কাউন্টারে সেগুলো বিক্রি হবে। অগ্রিম টিকিট বিক্রির জন্য স্থাপিত বিশেষ কাউন্টারে কোনো টিকিট বিক্রি হবে না।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0