বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মানববন্ধনে অংশ নেন বিএনপির ‘নিখোঁজ’ নেতা এম ইলিয়াস আলীর ছেলে আবরার ইলিয়াস। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল তাঁর বাবাকে তুলে নেওয়া হয়। সে সময় দুই সপ্তাহের ব্যবধানে সিলেট থেকে বিএনপির চার নেতা একইভাবে নিখোঁজ হন। ওই সময় সিলেটে টিপাইমুখ বাঁধবিরোধী আন্দোলন গড়ে উঠেছিল। দেশের স্বার্থে তাঁর বাবা ওই আন্দোলনের সামনের সারিতে ছিলেন। এ অবস্থানের কারণেই তাঁর বাবাকে গুম করা হয়েছে।

default-image

আবরার ইলিয়াস বলেন, ‘আমরা এখনো বাবার অপেক্ষার আছি। কারণ, আমরা দেখছি, বহু বছর পর অনেকে গুম নামের কারাগার থেকে ফিরে এসেছেন।’

মানববন্ধনে যোগ দেন কাঠ ব্যবসায়ী ইসমাইল হোসেনের স্ত্রী নাসরিন জাহান, মেয়ে আনিশা ইসলাম ও ছেলে এনাম। তাঁরা জানান, ২০১৯ সালের ১৯ জুন ইসমাইল ‘গুম’ হন।

নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী আনিশা বলে, ‘প্রতিদিন বাবার অপেক্ষায় থাকি। আমরা বাবার সন্ধান চাই।’

default-image

মানববন্ধনে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘কোনো মানুষ নিখোঁজ হলে বা হারিয়ে গেলে, তাঁকে খুঁজে দেওয়ার দায়িত্ব সরকারের। কারণ, আমাদের জানমালের নিরাপত্তা দেবে তারা। কিন্তু সেটা হচ্ছে না।’

আলোকচিত্রী শহিদুল আলম অভিযোগ করে বলেন, এখানে সম্প্রতি যাঁরা গুম হয়েছেন, তাঁরা সরকারের দ্বারাই হয়েছেন।

ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক গুম হওয়া ব্যক্তিদের অবিলম্বে সন্ধান দেওয়ার দাবি জানান।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন