default-image

রাজধানীর গুলশানে বাড়ির সামনে অবস্থান করে আলোচনায় আসা দুই বোন মুশফিকা ও মোবাশ্বেরার বাবা প্রয়াত মোস্তফা জগলুল ওয়াহিদের সব ব্যাংক হিসাবের লেনদেন পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ থাকবে বলে আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ সোমবার এ আদেশ দেন। একই সঙ্গে গুলশানের (২-এ ৯৫ নম্বর) ওই বাড়িতে থাকা জিনিসপত্র কোনো পক্ষ বাইরে নিতে পারবে না এবং দুই বোনের নিরাপত্তা অব্যাহত রাখতে গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

‘গুলশানে বাড়ির সামনে দুই বোনের অবস্থান’ শিরোনামে গত ২৫ অক্টোবর প্রথম আলোয় প্রতিবেদন ছাপা হয়। এটিসহ এ বিষয়ে গণমাধ্যমে আসা প্রতিবেদন বিবেচনায় নিয়ে ২৬ অক্টোবর হাইকোর্টের একই বেঞ্চ স্বতঃপ্রণোদিত রুলসহ আদেশ দেন।

আদালতের আদেশ অনুসারে সেদিন রাতে পুলিশ দুই বোনকে ওই বাড়িতে তুলে দেয় এবং নিরাপত্তায় পুলিশ মোতায়েন করে।

এরপর ৩ নভেম্বর হাইকোর্ট দুই বোন এবং তাঁদের বাবার দ্বিতীয় স্ত্রীর আঞ্জু কাপুরের সম্পত্তি দাবির সপক্ষে কাগজপত্র হলফনামা আকারে ৯ নভেম্বরের মধ্যে আদালতে দাখিল করতে নির্দেশ দেন। এ অনুসারে আজ বিষয়টি শুনানির জন্য ওঠে। শুনানি নিয়ে আদালত ৩ ডিসেম্বর শুনানির পরবর্তী তারিখ রেখেছেন।  

বিজ্ঞাপন

আদালতে দুই বোনের পক্ষে আইনজীবী মনজিল মোরসেদ এবং আঞ্জু কাপুরের পক্ষে আইনজীবী মাসুদ রেজা সোবহান শুনানিতে ছিলেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমিন উদ্দিন মানিক।

পরে আইনজীবী মনজিল মোরসেদ প্রথম আলোকে বলেন, দুই বোন ও আঞ্জু কাপুর সম্পত্তির দাবি–সংক্রান্ত কাগজাদি দাখিল করেন। আদালত কয়েক দফা নির্দেশনা দিয়েছেন। আঞ্জু কাপুর বিদেশি নাগরিক হিসেবে হলফনামা দিতে পারেন কি না, সম্পত্তির মালিক হতে পারেন কি না, তা হলফনামা আকারে জানাতে বলা হয়েছে।

জগলুল ওয়াহিদের মৃত্যুর পর তাঁর ব্যাংকের লেনদেন ও বর্তমান হিসাবও হলফনামা করে দিতে বলা হয়েছে।

মন্তব্য পড়ুন 0