বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আটক জেসমিন ও স্থানীয়দের বরাত দিয়ে গুলশান থানার পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে জেসমিনের মেয়ে মেঝেতে পানি ফেলে। এতে রেগে গিয়ে মেয়েটিকে চড় মারেন নিকিতা। এ সময় বাধা দিলে তিনি জেসমিনকেও চড় মারেন। এ নিয়ে কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে জেসমিন পুঁতা দিয়ে তাঁর মাথায় আঘাত করেন। এতে নিকিতা অচেতন হয়ে মেঝেতে লুটিয়ে পড়েন। এ সময় জেসমিন বটি নিয়ে উপর্যুপরি কোপান। এতে ঘটনাস্থলে নিকিতার মৃত্যু হয়। পরে রাতে পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠায়।

পুলিশ আরও জানায়, নিকিতা তাঁর স্বামী মুরাদ হোসেনের সঙ্গে নর্দ্দায় নিজেদের টিনশেড বাড়িতে থাকতেন। ১৫ থেকে ২০ দিন আগে মুরাদ গ্রামের বাড়ি শেরপুরে যাওয়ার পর তিনি বাসায় একাই ছিলেন। কয়েক দিন আগে জেসমিন তাঁর মেয়ে নিয়ে এই বাসায় বেড়াতে আসেন।

পুলিশ জানায়, নিকিতার আগে একটি বিয়ে হয়েছিল। বিচ্ছেদ হওয়ার পর কয়েক মাস আগে মুরাদের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। বাড়ি ভাড়া দিয়েই মুরাদের সংসার চলে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন