বিজ্ঞাপন

টাইগারের মালিক বিল্লাল হোসেন জানান, কিশোরগঞ্জ সদরেই তাঁর খামারেই টাইগারের জন্ম। বাছুর অবস্থা থেকেই এর লালন-পালন করছেন। টাইগারের বয়স এখন চার বছর। ছোট থেকেই এর রাগ বেশি। অপরিচিত কাউকে দেখলেই শিং দিয়ে গুঁতা দেওয়ার চেষ্টা করে। তাই নাম রাখা হয়েছে টাইগার।

আজ শনিবার বেলা সাড়ে তিনটার দিকে বিল্লাল হোসেনের সঙ্গে যখন কথা হচ্ছিল, তখন বিশাল আকৃতির এই গরু দেখতে আসা মানুষের জটলা ছিল। উৎসুক ক্রেতাদের কেউ কেউ গরুটির নাম, কেউ আবার দাম জানতে চাইছিলেন। অনেকে আবার গরুটির সঙ্গে সেলফিও তুলছিলেন।

একই হাটে প্রায় ৩৫ মণ ওজনের আরেকটি গরু এনেছেন ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলার খামারি আতিকুল ইসলাম। এই গরুটির সামনেও মানুষের জটলা ছিল।
গরুর মালিক জানান, গরুটির নাম রাখা হয়েছে ‘মমিসিংগা নবাব’। দাম চাচ্ছেন ১৫ লাখ টাকা। অনেকে দাম জিজ্ঞেস করছেন। তবে এখনো প্রত্যাশিত দাম কেউ বলছেন না।

হাট ঘুরে আরও দেখা যায়, টাইগার ও নবাবের চেয়ে কিছুটা ছোট আকৃতির অসংখ্য গরু এসেছে। এমন গরুর মধ্যে ২৪ মণ ওজনের ‘তুরাগের বস’–এর দাম চাওয়া হচ্ছে ১৫ লাখ টাকা। এ ছাড়া বড় আকারের গরুগুলোর জন্য সর্বনিম্ন ৭ লাখ থেকে সর্বোচ্চ ১৩ লাখ টাকা দাম হাঁকাচ্ছেন পাইকাররা। তবে এবারও মাঝারি আকৃতির গরুর চাহিদাই বেশি বলে ব্যাপারীরা জানিয়েছেন।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন