default-image

পরিবর্তনশীল বিশ্বের সঙ্গে খাপ খাইয়ে এগিয়ে যেতে তরুণ প্রজন্মের দক্ষতা উন্নয়নে সবাইকে বিশেষভাবে মনোযোগী হতে হবে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের এই যুগে চাকরির বাজারে টিকে থাকতে তরুণদের আরও দক্ষ করে গড়ে তুলতে হবে। আজ সোমবার গ্রামীণফোন আয়োজিত এক ভার্চুয়াল আলোচনায় এসব কথা বলেন আলোচকেরা। জাতীয় যুব দিবস উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে তরুণদের দক্ষতা উন্নয়ন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ ও সুবিধা কাজে লাগাতে গ্রামীণফোন ‘জিপি এক্সপ্লোরার’ নামে একটি প্ল্যাটফর্ম শুরু করে।

ভার্চুয়াল আলোচনায় জিপি এক্সপ্লোরার সম্পর্কে বলা হয়, এটি বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের তিন শ শিক্ষার্থীর জন্য তিন মাস ব্যাপী একটি অনলাইন প্রোগ্রাম। এতে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাছাইকৃত শিক্ষার্থীরা বিশেষ প্রশিক্ষণ পাবেন। তরুণেরা এই সময়ে ‘কোহর্ট-১’ নামক কর্মসূচির আওতায় আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক কাঠামোতে কাজ করার সুযোগ পাবেন।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে দেশব্যাপী বেশ কিছু ডিজিটাল পরিবর্তন হচ্ছে। পরিবর্তনশীল এই নতুন বিশ্বের সঙ্গে খাপ খাইয়ে এগিয়ে যেতে তরুণ প্রজন্মকে দক্ষতা উন্নয়নে বিশেষভাবে মনোযোগী হতে হবে।

যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আখতার হোসেন বলেন, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় তরুণদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে ও তাঁদের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে প্রশিক্ষণসহ নানামুখী কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছে। ফলে, তরুণেরা দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত হচ্ছেন।

প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ বলেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের যুগে চাকরির বাজারে টিকে থাকতে তরুণদের আরও দক্ষ করে গড়ে তুলতে হবে।

গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়াসির আজমান বলেন, জিপি এক্সপ্লোরার তরুণদের দক্ষতা উন্নয়নের প্রথম পদক্ষেপ মাত্র। এর মাধ্যমে স্থানীয় তরুণেরা আন্তর্জাতিকভাবে দক্ষ কর্মীদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলার সুযোগ পাবেন।

অনুষ্ঠানে জিপি এক্সপ্লোরার সম্পর্কিত উপস্থাপনা দেন গ্রামীণফোনের হেড অব ইনোভেশন ফারহানা ইসলাম। অনুষ্ঠান সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন গ্রামীণফোনের হেড অব কমিউনিকেশনস খায়রুল বাশার।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0