default-image

স্ত্রীর সঙ্গে কথাকাটাকাটির জের ধরে বাবা তার দুই সন্তানের গলায় ছুরি চালিয়ে পরে নিজেও আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। বাবার ছুরির আঘাতে সাত বছর বয়সী মেয়ে রোজা মারা যায়। গুরুতর অবস্থায় বাবা জাভেদ হোসেন ও তার ছেলে রোজেনকে (১৪) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আজ বুধবার বিকেলে রাজধানীর হাজারীবাগের বটতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

বিজ্ঞাপন

পারিবারিক ও পুলিশ সূত্র জানায়, মোবাইল ফোনের ব্যবসায়ী জাভেদ হোসেন সপরিবারে বটতলায় থাকেন। আজ বিকেল তিনটার পর জাভেদ হোসেনের সঙ্গে তার স্ত্রীর ঝগড়া হয়। পরে জাভেদের স্ত্রী বাসার অন্য কক্ষে গেলে ক্ষুব্ধ জাভেদ তার দুই সন্তান রোজা ও ছেলে রোজেনের গলায় ছুরি চালিয়ে দেন। পরে জাভেদ নিজের গলায় ছুরি চালিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। এ সময় গোঙানির শব্দে জাভেদর স্ত্রী তার দুই সন্তান ও স্বামীকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। স্বজনেরা রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশু রোজাকে মৃত ঘোষণা করেন। চিকিৎসকেরা বলেছেন, বাবা ও ছেলের অবস্থা গুরুতর।

বিজ্ঞাপন

এক সন্তানের মৃত্যু ও আরেক সন্তানের সংকটাপন্ন অবস্থায় দিশেহারা মা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেঝেতে পড়ে বুক চাপড়ে কাঁদছিলেন। এ সময় উপস্থিত স্বজনেরা তাকে সান্ত্বনা দিতে গিয়ে কেঁদে ফেলেন।

ধানমন্ডি অঞ্চলের অতিরিক্ত উপকমিশনার আবদুল্লাহ আল কাফি আজ প্রথম আলোকে বলেন, জাভেদ হোসেন তার স্ত্রী ও দুই সন্তান নিয়ে বটতলায় দোতলা টিনশেড ঘরে থাকতেন। নিচতলায় তার মুঠোফোনের দোকান আছে। তিনি বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে ছয়-সাত লাখ টাকা ঋণ নিয়েছেন। সম্প্রতি আর্থিক অনটন প্রকট হয়ে ওঠে। ধারণা করা হচ্ছে, এ কারণেই মানসিক অশান্তি থেকে জাভেদ তার দুই শিশু সন্তানের গলায় ছুরি চালান। পরে একই ছুরি নিজের গলায় চালিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

মন্তব্য পড়ুন 0