বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এক রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ রোববার রুলসহ এ আদেশ দেন। কমিটিতে একজন জেলা জজ, সহযোগী অধ্যাপকের নিচে নন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের এমন একজন চিকিৎসক এবং একজন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল থাকবেন বলা হয়েছে।

ওই শিক্ষকের একমাত্র শিশুসন্তান ইউজারসিফ মাহমুদ বর্ণভ গত অক্টোবরে রিটটি করে। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী অনীক আর হক, সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী মনজুর নাহিদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নওরোজ মো. রাসেল চৌধুরী।

পরে আইনজীবী অনীক আর হক প্রথম আলোকে বলেন, চিকিৎসার অবহেলার কারণে নিহতের পরিবারকে ১৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না—এটিসহ কয়েকটি বিষয়ে রুলে জানতে চাওয়া হয়েছে। ২৮ ফেব্রুয়ারি পরবর্তী শুনানির জন্য দিন রাখা হয়েছে।

আইনজীবীর তথ্যমতে, সাঈদা নাসরিন রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ৭ জুলাই মারা যান। এর আগে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ২০ জুন থেকে তিনি ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন