default-image

স্বাধীনতা দিবসে ‘মানুষ হত্যা’ ও ‘পুলিশি হামলার’ অভিযোগে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করছে বিএনপি।

আজ সোমবার সকাল থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এই কর্মসূচি পালন করছে বিএনপি। মহানগর বিএনপি ও তার বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা এই কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছেন।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরবিরোধী বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে গত শুক্রবার সংঘর্ষে হতাহত হওয়ার ঘটনায় বিএনপি ২৯ মার্চ ঢাকাসহ বিভাগীয় শহরে এবং ৩০ মার্চ জেলা শহরে বিক্ষোভ কর্মসূচি দেয়। সেই কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করছে বিএনপি। ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপি এই কর্মসূচির আয়োজক।

কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া নেতা-কর্মীরা সড়কে অবস্থান করছেন। এ কারণে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে যান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে জাতীয় প্রেসক্লাব ও তার আশপাশের এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
default-image

কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর উপস্থিত থাকবেন বলে দলীয় নেতারা জানিয়েছেন।

বেলা ১১টায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আজিজুল বারী হেলার, সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান সালেহ প্রিন্স, ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি বজলুল বাসিত, সাধারণ সম্পাদক আবদুল আলীম, মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক আবুল বাসার, স্বেচ্ছাসেবক দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন প্রমুখ।

সমাবেশে বিএনপির নেতারা বলেন, এখন পর্যন্ত ১৭ জন মানুষকে হত্যা করা হয়েছে। স্বাধীন দেশের স্বাধীনতা দিবসে মানুষ হত্যা ও পুলিশি হামলা কোনোভাবেই কাম্য নয়। স্বাধীনতা দিবসে এই ঘটনার মাধ্যমে স্বাধীনতাকে কলুষিত করা হয়েছে। বিএনপি চায়, এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার হোক। তা না হলে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের নেতৃত্বে বিএনপি এই অন্যায় কঠোরভাবে প্রতিহত করবে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন