বৃহস্পতিবার দুপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে। কমলাপুর রেলওয়ে থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. শাহজাহান প্রথম আলোকে বলেন, কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে দুপুরে নেত্রকোনার মোহনগঞ্জগামী মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেসে ওঠার সময় ট্রেনে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান তারেকুজ্জামান। বেলা দেড়টার দিকে পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

নিহত ব্যক্তির স্ত্রী কুলসুম আরা খাতুন চাকরি করেন শিল্প মন্ত্রণালয়ে। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, বৃহস্পতিবার সকালে মিরপুরের পীরেরবাগের বাসা থেকে অফিসে যান তাঁর স্বামী। এরপর দুপুরে অফিসে নামাজ পড়ার সময় তাঁর মোবাইলে এ দুর্ঘটনার খবর আসে। তাঁর স্বামী অফিস থেকে সেখানে কেন গিয়েছিলেন, সে বিষয়ে কিছু বলতে পারেননি তিনি।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, তারেকুজ্জামানের গ্রামের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার রহনপুরে। তাঁর দুই ছেলে–মেয়ে রয়েছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন