ঈদের আগে ডিএনসিসির মেয়র ১২ ঘণ্টার মধ্যে ও ডিএসসিসির মেয়র ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কোরবানির বর্জ্য অপসারণের ঘোষণা দিয়েছিলেন। এ জন্য ঈদ উপলক্ষে সিটি করপোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের পরিচ্ছন্নতাকর্মীসহ সবার ছুটি বাতিল করা হয়েছে। বর্জ্য অপসারণে প্রায় ১৯ হাজার পরিচ্ছন্নতাকর্মী কাজ করছেন।

ডিএনসিসির কর্মীরা আজ রোববার সকাল ১০টা থেকেই বর্জ্য পরিষ্কারের কাজ শুরু করেন। বেলা দুইটার দিকে সাঈদনগরের পশুর হাট পরিষ্কারের মধ্য দিয়ে বিশেষ পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন ঢাকা উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম। অন্যদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রমও বেলা দুইটায় আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়ে দিনভর চলে।

default-image

বিকেলে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের কাজ করতে দেখা যায়। রিকশাভ্যান, ময়লা টানার ছোট গাড়িতে করে বাসাবাড়ি থেকে কোরবানির পশুর বর্জ্য এনে সিটি করপোরেশনের ময়লা রাখার প্রাথমিক ঘর (এসটিএস) ও কনটেইনারে রাখছেন তাঁরা। এরপর ময়লাবাহী গাড়ি সেই কনটেইনার নিয়ে ময়লার ভাগাড়ের পথে ছুটছে। অনেক এলাকায় কোরবানির বর্জ্য পরিষ্কার হয়ে গেছে। তবে কোথাও কোথাও এখনো পশুর বর্জ্য পড়ে থাকতে দেখা যায়।

দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাছের প্রথম আলোকে বলেন, রাত ৮টা পর্যন্ত ৩১টি ওয়ার্ড থেকে কোরবানির পশুর শতভাগ বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে। আর এ পর্যন্ত সার্বিকভাবে প্রায় ৮৫ শতাংশ বর্জ্য অপসারণ করা সম্ভব হয়েছে। অন্যদিকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোকবুল হোসাইন প্রথম আলোকে বলেন, রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত কোরবানির ৯৫ শতাংশ বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে।

সিটি করপোরেশন সূত্র জানায়, চলতি বছর ঢাকা দক্ষিণে পরিচ্ছন্নতার কাজে নিয়োজিত থাকবেন ৯ হাজার ৫০ জন কর্মী। এ কাজে ব্যবহার করা হবে ৩৫৩টি গাড়ি। অন্যদিকে ঢাকা উত্তরে দায়িত্ব পালন করবেন ৯ হাজার ৯৯০ জন পরিচ্ছন্নতাকর্মী। গাড়ি ব্যবহৃত হবে ৫৮৫টি।

অন্যান্য বছরের তুলনায় নিজ উদ্যোগে কোরবানির বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় রাজধানীবাসী নিজেরাও এবার বেশি সচেতন। সিটি করপোরেশনের দেওয়া পলিব্যাগে কোরবানির বর্জ্য ভরে রেখে পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের জন্য রেখে দিয়েছেন অনেকেই। যাঁরা সিটি করপোরেশনের পলিব্যাগ পাননি, তাঁরা নিজেরা পলিথিনের ব্যাগ কিনে তাতে বর্জ্য ভরে রেখেছেন। কোথাও কোথাও পশুর রক্ত নিজেদেরই পরিষ্কার করতে দেখা যায়।

এবারের ঈদুল আজহায় ঢাকা উত্তরের বাসিন্দাদের বর্জ্য অপসারণের সুবিধার্থে সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে পাঁচ লাখ পচনশীল পলিব্যাগ বিতরণ করা হয়েছে। দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে নগরবাসীকে ১ লাখ ২০ হাজার পলিব্যাগ বিনা মূল্যে দেওয়া হয়েছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন