বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য (শিক্ষা) এ এস এম মাকসুদ কামাল প্রথম আলোকে বলেন, এখন থেকে প্রফেশনাল ও এক্সিকিউটিভ মাস্টার্স প্রোগ্রামে শিক্ষার্থী ভর্তি করা যাবে। তবে যে প্রোগ্রামটি শুরু করা হবে, সেটি নতুন নীতিমালার আলোকে নতুনভাবে একাডেমিক কাউন্সিলে অনুমোদন করে নিতে হবে। তার জন্য নতুন করে আবেদন করতে হবে। কোনো বিভাগ একাধিক প্রোগ্রাম চালু করতে পারবে না। যেসব বিভাগ এতদিন দুই-তিনটি করে প্রোগ্রাম চালু রেখেছিল, তারা যে প্রোগ্রামটি এখন চালু রাখতে চান, সেটির জন্য অনুমোদন নিতে হবে এবং সেই প্রোগ্রামের নামও পাল্টে যাবে।

মাকসুদ কামাল আরও বলেন, প্রফেশনাল ও এক্সিকিউটিভ মাস্টার্স প্রোগ্রামে শিক্ষার্থী ভর্তিতে পরীক্ষা হবে। ভর্তি পরীক্ষায় ন্যূনতম ৪০ নম্বর পেতে হবে, শিক্ষাজীবনের কোনো পরীক্ষায় তৃতীয় শ্রেণি থাকা যাবে না, জিপিএ বা সিজিপিএর ক্ষেত্রে ২ দশমিক ৫-এর নিচে থাকতে পারবে না। এসব নতুন নিয়ম মেনে শিক্ষার্থী-ভর্তি করতে হবে। অনুমোদন ছাড়া এ ধরনের প্রোগ্রাম পরিচালনা করা যাবে না।

২০২০ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের এক সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ে চলমান সান্ধ্য কোর্সসহ অনিয়মিত সব কোর্সে নতুন শিক্ষার্থী ভর্তির সব ধরনের কার্যক্রম স্থগিত করা হয়। একই সঙ্গে সান্ধ্য কোর্স পরিচালনার সময়োপযোগী বিধিমালা প্রণয়ন করতে একটি কমিটিও করা হয় সেদিন। করোনা পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘদিন ওই কমিটির কার্যক্রম বন্ধ ছিল। অবশেষে গত ২১ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলে ওই কমিটির তৈরি করা একটি বিধিমালা অনুমোদিত হয়। সেটি সামান্য সংশোধন সাপেক্ষে এবার সিন্ডিকেটেও অনুমোদিত হলো।

২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষ থেকে ইউনিট ৪টি

প্রতিবারের মতো আসন্ন ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষেও পাঁচটি ইউনিটে (ক, খ, গ, ঘ ও চ) ভর্তি পরীক্ষা হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। তবে ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষ থেকে পরীক্ষা হবে চারটি ইউনিটে। থাকবে না সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ঘ ইউনিট, পরীক্ষা হবে চারটি ইউনিটে। এর সঙ্গে বদলে যাবে ইউনিটগুলোর নামও।

গত ২১ মার্চ একাডেমিক কাউন্সিলে অনুমোদিত এসব সিদ্ধান্ত রোববারের সিন্ডিকেট সভায় চূড়ান্ত হয়েছে। ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষ থেকে ইউনিটগুলোর নাম হবে বিজ্ঞান ইউনিট, ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিট, চারুকলা ইউনিট এবং কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিট।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সহযোগী অধ্যাপক ও অধ্যাপক পদে নিয়োগ ও পদোন্নতির ক্ষেত্রে পিএইচডি বা সমতুল্য ডিগ্রি থাকার বাধ্যবাধকতা আগামী ১ জুলাই ২০২৩ থেকে কার্যকর করার সিদ্ধান্তও চূড়ান্ত করেছে সিন্ডিকেট। এ ছাড়া শিক্ষার্থীদের আবাসিক সুযোগ-সুবিধা, করপোরেট শিষ্টাচার, মানবিক মূল্যবোধ, শৃঙ্খলাবোধ, সৃজনশীলতা ও মননশীলতার বিকাশ প্রভৃতি উন্নয়নের জন্য আবাসিক হল ও হোস্টেলের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় প্রশাসনের দায়-দায়িত্ব ও কর্তব্য এবং বিভিন্ন কর্মকৌশল বাস্তবায়ন বিষয়ে প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটির প্রণীত নীতিমালা নিয়েও সিন্ডিকেটে আলোচনা হয়েছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন