বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রায়ের পর কিশোর কলেজছাত্রকে টঙ্গীর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। প্রথম আলোকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনাকারী সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) আলী আসগর।

মামলার কাগজপত্রের তথ্য বলছে, ভুক্তভোগী দুটি শিশু সম্পর্কে ওই কিশোরের আত্মীয়। ২০১৭ সালের ১৯ জুন শিশু দুটির দাদা অসুস্থ ছিলেন। পরে তাদের বাসায় রেখে শ্বশুরকে নিয়ে হাসপাতালে যান শিশু দুটির মা। এ সময় ওই দুই শিশুকে ধর্ষণ করে ওই কিশোর।

এ ঘটনায় ২০১৭ সালের ২৫ জুন শিশু দুটির মা বাদী হয়ে কিশোরের বিরুদ্ধে দক্ষিণখান থানায় ধর্ষণ মামলা করেন। মামলায় ২০১৭ সালের ২০ সেপ্টেম্বর ওই কিশোরের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় পুলিশ। রাষ্ট্রপক্ষ থেকে এ মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত ১০ জন সাক্ষীর মধ্যে ৭ জনকে আদালতে হাজির করা হয়।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন