default-image

ফেসবুকে ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) এক ছাত্রীকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

তবে ওই ছাত্রী গত ২৩ অক্টোবর পল্লবী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। তাতে তিনি উল্লেখ করেছেন, তাঁর ফেসবুক আইডি হ্যাক করে বিভিন্ন গ্রুপ ও পেজে মন্তব্য করা হচ্ছে।

গতকাল সোমবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে দুইটি পৃথক বিজ্ঞপ্তিতে এ সব তথ্য জানানো হয়। বহিষ্কার আদেশ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের স্নাতক ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ফেসবুকে ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করায় পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত তাঁকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।  ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আইন -২০০৫ এর ধারা ১১(১০) এর উপাচার্যের ক্ষমতাবলে সিন্ডিকেটের অনুমোদন সাপেক্ষে এ সিদ্ধান্ত হয়। তাঁকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কেন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না, তা লিখিত ভাবে আগামী ১০ দিনের মধ্যে রেজিস্ট্রার বরাবর জানাতে বলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন


অপর অফিস আদেশে জানানো হয়, ঘটনা তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ডিন ও সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক মনিরুজ্জামান (আহ্বায়ক), ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক আবদুল অদুদ ও কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আবু লায়েক। কমিটিকে আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে উপাচার্যের কাছে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

ঘটনার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জানান, অভিযুক্ত শিক্ষার্থী বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সংগঠক। এর আগেও তিনি বিভিন্ন সময়ে ইসলাম ধর্ম নিয়ে ফেসবুকে কটূক্তি করেন। গত শুক্রবার এমন কিছু পোস্টের স্ক্রিনশট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপে ছড়িয়ে ছড়িয়ে পড়ে। এরপর থেকে শিক্ষার্থীরা ওই ছাত্রীর শাস্তি দাবি করেছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0