default-image

রাজধানীর সিকিউরিটি কোম্পানির এক নারী কর্মকর্তাকে ধর্ষণের অভিযোগে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালককে দুই দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি দিয়েছেন আদালত।

শুক্রবার রফিকুল ইসলাম (৫০) নামের ওই আসামিকে গ্রেপ্তার করে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন জানায় ক্যান্টনমেন্ট থানা-পুলিশ। আদালত শুনানি শেষে দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

ক্যান্টনমেন্ট থানার পরিদর্শক মো. শিহাব উদ্দিন জানান, পুলিশ রফিকুলকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে।

বিজ্ঞাপন

মামলার এজাহার ও পুলিশ সূত্রের ভাষ্য অনুযায়ী, ভুক্তভোগী ওই নারীর বয়স ৩৪ বছর। তিনি ১ অক্টোবর সিকিউরিটি সার্ভিস লিমিটেড নামের প্রতিষ্ঠানে রিক্রুটিং ব্যবস্থাপক হিসেবে যোগ দেন। তিনি প্রতিষ্ঠানটির ক্যান্টনমেন্ট থানা এলাকার অফিসে কর্মরত ছিলেন। ৬ অক্টোবর বিকেলে আসামি রফিকুল ইসলাম তাঁকে অফিসে ধর্ষণ করেন। পরে প্রতিষ্ঠানের পরিচালক মোমিনুর রশীদও তাঁকে ধর্ষণ করেন। ধর্ষণের কথা কাউকে না বলতে হুমকি দেন আসামিরা। সর্বশেষ ২০ অক্টোবর রফিকুল তাঁকে আবার ধর্ষণ করেন। এ ঘটনায় ২২ অক্টোবর ওই নারী বাদী হয়ে রফিকুল ইসলাম খান ও মোমিনুর রশীদকে আসামি করে ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ক্যান্টনমেন্ট থানার পরিদর্শক শিহাব উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, এই মামলার রহস্য উদ্‌ঘাটনের জন্য আসামি রফিকুল ইসলামকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়েছে। মামলার পলাতক আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য পড়ুন 0