default-image

রাজধানীর জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী আছেন—এমন কথা ছড়িয়ে পড়লে আজ সোমবার সবাই আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। তাঁর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) কাছে সহায়তা চেয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, সৌদি আরব থেকে আসা এক ব্যক্তি তিন থেকে চার দিন আগে পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি হন। তাঁর হাতে-পায়ে সমস্যা আছে। ওই সময় থেকেই তাঁর জ্বর, হাঁচি-কাশি আছে। আজ সকালের দিকে হঠাৎই ছড়িয়ে পড়ে যে তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। এ সময় তাঁর সঙ্গে ওই ওয়ার্ডে থাকা রোগী, হাসপাতালের কর্মচারীসহ সবার মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

হাসপাতালের নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক নার্স বলেন, সকালে বিষয়টি আইইডিসিআরকে জানানো হয়। দুপুর পর্যন্ত পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য কেউ না আসায় ওই ওয়ার্ডের রোগীরা সেখান থেকে চলে যেতে চায়। পরে ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালের নতুন ভবনের একটি কক্ষে আইসোলেশনে পাঠানো হয়। সেখানে নার্স-চিকিৎসক কেউ যেতে চাইছেন না জানিয়ে তিনি বলেন, তাঁদের জন্য মাস্কসহ প্রয়োজনীয় উপকরণ নেই।

হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক মোহা. আবদুল গণি মোল্যা বলেন, এক মন্ত্রীর আত্মীয় পরিচয়ে ওই রোগী হাসপাতালে ভর্তি হন। তখন থেকেই তিনি সর্দি-জ্বরে আক্রান্ত। তাঁর বিষয়ে করণীয় ঠিক করতে আইইডিসিআরে যোগাযোগ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0