বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত ৩০ সেপ্টেম্বর রাজধানীর পল্লবী থেকে নিখোঁজ হন তিন কলেজছাত্রী (বয়স ১৬ থেকে ১৭ বছর)। অপহরণের অভিযোগ এনে ২ অক্টোবর রাকিবুল্লাহসহ (২০) চারজনের নামে পল্লবী থানায় অপহরণ মামলা করেন কলেজছাত্রীদের এক অভিভাবক।

পুলিশ পরিদর্শক হারুন অর রশীদ জানান, এই মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া চারজনের মধ্যে তিনজন শিশু। এঁদের মধ্যে দুই শিশুর জামিন হয়েছে। বাকি দুজন কারাগারে আছেন।
মামলা করার চার দিন পর ৬ অক্টোবর ওই তিন কলেজছাত্রীকে রাজধানীর অদূরে আবদুল্লাহপুর এলাকা থেকে উদ্ধার করে র‍্যাব। পরে র‍্যাব-৪–এর অধিনায়ক মোজাম্মেল হোসেন সংবাদমাধ্যমকে জানান, ২০ থেকে ২২ বছর বয়সী এক তরুণীর খপ্পরে পড়ে ঘর ছেড়েছিল ওই তিন ছাত্রী।

র‍্যাব কর্মকর্তা মোজাম্মেল হোসেন বলেছিলেন, ওই তিন কলেজছাত্রী মানব পাচারকারী চক্রের সদস্যদের খপ্পরে পড়েছিল। ওই ছাত্রীদের মধ্যেও এক ধরনের উচ্চাকাঙ্ক্ষা ছিল। করোনার সময়ে তাঁদের পড়াশোনার জন্য চাপ দেওয়া হয়। এতে তাঁরা পরিবারের ওপর বিরক্ত ছিলেন। এমন অবস্থায় এক তরুণীর (হাফসা নামে) সঙ্গে তাঁদের পরিচয় হয়। ওই তরুণী বলেছিলেন, তিনি জাপানে থাকেন। ওই ছাত্রীদেরও জাপানে নিয়ে যেতে পারবেন। কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দিলে সেখানে অনেক উন্নত জীবন যাপন করা যাবে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন