বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের কর্মকর্তা মো. রায়হান আজ প্রথম আলোকে বলেন, আজ সকাল ৯টার দিকে কালশীর ২২ তলা ভবনের কাছে এক ব্যক্তিকে পয়োবর্জ্য খালে পড়ে যেতে দেখেন স্থানীয় লোকজন। তাঁরা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসে খবর দেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল তল্লাশি শুরু করে। বেলা ৩টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল খালটির ২০০ গজ দূরে ঝোপঝাড়ের মধ্যে তাঁকে দেখতে পান। পরে তাঁকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঘটনাস্থলে উপস্থিত পল্লবী থানার পুলিশের কাছে দেওয়া হয়। তারা তাঁকে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করায়।

পুলিশ জানায়, শামসুল সপরিবার পল্লবীর সুজাতনগরে থাকতেন। পেশায় চা–দোকানি শামসুল কিছুদিন ধরে জ্বর থাকায় শারীরিক অসুস্থ ছিলেন। অবশ্য সকালে ফায়ার সার্ভিস বলেছিল শামসুল মানসিক ভারসাম্যহীন।

পুলিশের পল্লবী অঞ্চলের সহকারী কমিশনার শাহ কামাল আজ বিকেলে প্রথম আলোকে বলেন, গত মঙ্গলবার বিকেল থেকে শামসুল নিখোঁজ ছিলেন। বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও তাঁর সন্ধান পাচ্ছিলেন না স্বজনেরা। খালে লোক পড়েছে খবর পেয়ে শামসুলের বড় ছেলে রিয়াজ আলম কালশীতে যান। অচেতন অবস্থায় উদ্ধার হওয়ার রিয়াজ তাঁর বাবাকে শনাক্ত করেন।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন