বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

র‌্যাব কর্মকর্তা এনায়েত কবির বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে যাত্রাবাড়ীর গোলাপবাগ এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। এক্স–রে করে পেটে ইয়াবা থাকার অস্তিত্ব থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়। পরে কাজী কামরুলের পেটের ভেতর থেকে ৩০টি ক্যাপসুল বের করা হয়।

default-image

তাঁর কাছ থেকে ১ হাজার ৪২৫টি ইয়াবা পাওয়া যায়। শেখ হৃদয়ের কাছ থেকে ৩০টি ক্যাপসুলে ১ হাজার ৪২৫টি, ওমর ফারুকের কাছ থেকে ৭০টি ক্যাপসুলে ৩ হাজার ও হাবিবুর রহমানের কাছ থেকে ৫০টি ক্যাপসুলে ২ হাজার ৬০০টি ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব কর্মকর্তারা বলেন, গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী। তাঁরা বেশ কিছুদিন ধরে দেশের সীমান্তবর্তী জেলা থেকে ইয়াবা সংগ্রহ করছিলেন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিতে তাঁরা এই কৌশলে মাদক পাচার করছিলেন।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন