default-image

পাবনা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ভোট পুনর্গণনার নির্দেশ দিয়ে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগ। চেম্বার বিচারপতি মো. নূরুজ্জামান আজ রোববার এ আদেশ দেন।

একই সঙ্গে আবেদনটি ২৯ এপ্রিল আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠিয়ে দেওয়া হয়। হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী শরিফ উদ্দিন প্রধান আবেদনটি করেছিলেন।

গত ৩০ জানুয়ারি পাবনা পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আলী মুর্তজা বিশ্বাসকে ১২২ ভোটে পরাজিত করে আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী শরিফ উদ্দিন প্রধান বেসরকারিভাবে বিজয়ী হন। মেয়র পদে ভোট পুনর্গণনা চেয়ে প্রথমে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও পরে নির্বাচন কমিশনে আবেদন করেন আলী মুর্তজা বিশ্বাস। একই বিষয়ে ১ ফেব্রুয়ারি সিইসি ও ইসি সচিবের কাছে আবেদন দেন তিনি। এতে ফল না পেয়ে মেয়র পদে ভোট পুনর্গণনার নির্দেশনা চেয়ে ৪ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টে রিট করেন আলী মুর্তজা বিশ্বাস। রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে ১০ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট রুলসহ আদেশ দেন।

বিজ্ঞাপন

হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে শরিফ উদ্দিন প্রধান আপিল বিভাগে আবেদন করেন, যা আজ চেম্বার আদালতে শুনানির জন্য ওঠে।

আদালতে শরিফ উদ্দিন প্রধানের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী প্রবীর নিয়োগী ও মুন্সী মনিরুজ্জামান। আলী মুর্তজা বিশ্বাসের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী আবদুল বাসেত মজুমদার ও আবদুল মতিন খসরু।

আইনজীবী প্রবীর নিয়োগী প্রথম আলোকে বলেন, ‘মেয়র পদে ফলাফলের গেজেট প্রকাশে স্থগিতাদেশ দিয়ে এক মাসের মধ্যে মেয়র পদে ভোট পুনর্গণনা করতে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। মেয়র পদে শরিফ উদ্দিন প্রধানকে নির্বাচিত ঘোষণা করে ৭ ফেব্রুয়ারি গেজেট প্রকাশ করা হয়। হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত হওয়ায় মেয়র পদে ভোট পুনর্গণনা হচ্ছে না এবং ৭ ফেব্রুয়ারির গেজেট অনুসারে শরিফ উদ্দিন প্রধান দায়িত্ব নিয়ে কাজ চালিয়ে যেতে পারবেন।’

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন