default-image


করোনা পরীক্ষার সনদ পেতে সরকার ফি নির্ধারণ করে দিলেও অনেক ক্ষেত্রে তা মানা হচ্ছে না। অনেকের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত টাকা নেওয়া হচ্ছে। এই অবস্থা দেশে ফিরে আসা প্রবাসী শ্রমিকদের ওপর মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা হয়ে দাঁড়িয়েছে। শ্রমিকদের বিনা মূল্যে করোনা পরীক্ষার সনদ ও ভ্যাকসিন দেওয়ার দাবি জানানো হয়।

আজ শুক্রবার বিকেলে বাংলাদেশ অভিবাসী শ্রমিক ফোরাম ও বাংলাদেশি অভিবাসী মহিলা শ্রমিক অ্যাসোসিয়েশনের যৌথ উদ্যোগে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধন এসব দাবি জানানো হয়। মানববন্ধন থেকে নিরাপদ, হয়রানিমুক্ত ও নিয়মিত অভিবাসন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে আগামী রোববার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচি ঘোষণা দেওয়া হয়।

মানববন্ধনে শ্রমিকনেতারা বলেন, করোনা মহামারিতে বিদেশ থেকে লাখ লাখ শ্রমিক দেশে শূন্য হাতে ফেরত এসেছেন। এই অসহায় শ্রমিকেরা সরকারি কোনো সহায়তা না পাওয়ায় মানবেতর জীবন যাপন করছেন। অনেক শ্রমিক ঋণগ্রস্ত হয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। অথচ প্রবাসী কল্যাণ তহবিলে এই শ্রমিকদের অর্জিত কোটি কোটি টাকা জমা রয়েছে। সরকারকে অসহায় শ্রমিকদের সংকট নিরসনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। কিন্তু সরকারের এখনো কোনো কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ লক্ষ করা যাচ্ছে না।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ অভিবাসী শ্রমিক ফোরামের সভানেত্রী সাবিনা চৌধুরী। প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন শ্রমিকনেতা আবুল হোসাইন। আরও বক্তব্য দেন বাংলাদেশ অভিবাসী মহিলা শ্রমিক অ্যাসোসিয়েশনের সভানেত্রী লিলি জাহান, দপ্তর সম্পাদক নুরুন্নাবা আরিফ, বাংলাদেশ অভিবাসী শ্রমিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সুমাইয়া ইসলাম প্রমুখ।

আবুল হোসাইন বলেন, ২০২০ সালে সরকার দাবি করেছে সব ক্ষেত্রে আয় হ্রাস পেলেও একমাত্র প্রবাসীদের আয় বৃদ্ধি পেয়েছে। অথচ এই প্রবাসফেরত ও প্রবাসগামী শ্রমিকদের সমস্যা সমাধানে সরকারের পক্ষ থেকে কূটনৈতিক উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি। এতে ভবিষ্যতে বাংলাদেশের রেমিট্যান্স আয়ে ঘাটতি দেখা দেবে, যা দেশের অর্থনীতিকে হুমকির মুখে ফেলবে।

বিজ্ঞাপন
রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন