সেলফি পরিবহনকে জরিমানা করার ঘটনা ব্যাখ্যা করে মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, ‘আমরা জানতে পেরেছি, এখানে কয়েকটি পরিবহন ভাড়া বাড়িয়ে দিয়েছে। আমরা এখানে এসে সেলফি পরিবহনের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ পাচ্ছিলাম।

তারা ১৬৪ টাকার ভাড়া ২০০ থেকে ২৫০ টাকা রাখছিল। আমরা গাড়িতে উঠে অভিযোগের সত্যতা পাই। তারপর আমরা বাসের মালিক ও চালককে ডেকে কথা বলি। ১০০০ টাকা জরিমানা করি। তাঁরা কথা দিয়েছেন, আর বাড়তি ভাড়া নেবেন না।’

সেলফি পরিবহনের চেয়ারম্যান ঢাকা জেলা যানবাহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. আব্বাস উদ্দীন। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘ভোক্তা অধিদপ্তর থেকে আমাদের কাছে গিয়েছিল। তারা বোধ হয় রিপোর্ট পাইছে। আমি তো সরাসরি দেখি নাই। জানার পরে আমি গিয়ে বলে আসলাম, তোমরা নির্ধারিত ভাড়ার বাইরে নিবা না। এখন সেটাই চলছে।’

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন