বিএনপি-জামায়াতপন্থী সেই শিক্ষককে চাকরিচ্যুত করল ঢাবি সিন্ডিকেট

বিজ্ঞাপন
default-image

সংবাদপত্রে নিবন্ধ লিখে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে কটূক্তি ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃত করার দায়ে এক শিক্ষককে স্থায়ীভাবে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তিনি মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক মো. মোর্শেদ হাসান খান।
আজ বুধবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেটের সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়। দুজন সিন্ডিকেট সদস্য প্রথম আলোকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন৷
বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, অব্যাহতিপ্রাপ্ত শিক্ষক মোর্শেদ হাসান খান বিএনপি-জামায়াত সমর্থক শিক্ষকদের সংগঠন সাদা দলের নেতা।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সিন্ডিকেটের দুই সদস্য প্রথম আলোকে বলেন, অধ্যাপক মোর্শেদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ তদন্ত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের করা প্রশাসনিক ট্রাইব্যুনাল। এই ট্রাইব্যুনালের করা সুপারিশ অনুযায়ী তাঁকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকতার চাকরি থেকে স্থায়ী অব্যাহতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে৷ তবে তাঁর আদালতে যাওয়ার সুযোগ আছে। এই অধ্যাপকের বিষয়ে এর আগে প্রশাসন একটি তদন্ত কমিটি করেছিল। সেই কমিটির প্রতিবেদনের পর প্রশাসনিক ট্রাইব্যুনালটি করা হয়৷

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এর আগে আজ সকালে উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে স্মারকলিপি দেন সাদা দলের অর্ধশতাধিক শিক্ষক। সংগঠনের আহ্বায়ক অধ্যাপক এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম স্বাক্ষরিত স্মারকলিপিতে অধ্যাপক মোর্শেদকে চাকরিচ্যুত না করার অনুরোধ জানিয়ে বলা হয়, ‘একটি দৈনিক পত্রিকায় লিখিত একটি নিবন্ধে কিছু অনাকাঙ্ক্ষিত বক্তব্যের কারণে (নিবন্ধটি প্রত্যাহার, দুঃখ প্রকাশ ও ক্ষমা প্রার্থনা সত্ত্বেও) যদি তাঁকে চাকরিচ্যুত করার মতো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, তা হবে নজিরবিহীন দৃষ্টান্ত এটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রচলিত চাকরিবিধিরও সুস্পষ্ট ব্যত্যয় হবে। এমন সিদ্ধান্ত স্বাধীন মতপ্রকাশ ও মুক্তবুদ্ধি চর্চার বিশ্ববিদ্যালয়ের সুমহান ঐতিহ্যেরও পরিপন্থী হবে।’ স্মারকলিপিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিভাবক হিসেবে এ ব্যাপারে উপাচার্যের সদয় ও সুদৃষ্টিও কামনা করেন তাঁরা৷

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এদিকে অধ্যাপক মোর্শেদের চাকরিচ্যুতির দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার সংশ্লিষ্টদের আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের একাংশের কেন্দ্রীয় সভাপতি আমিনুল ইসলাম৷ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান, সহ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদকেও নোটিশের অনুলিপি পাঠানো হয়েছে৷ একই দাবিতে কয়েক দিন আগে তারা মানববন্ধনও করেছিল। অধ্যাপক মোর্শেদকে চাকরিচ্যুত করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন মঞ্চের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আল মামুন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন