বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ সোমবার সকাল সোয়া ৯টার দিকে ১১ জন আরোহী নিয়ে নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে। বিকেল তিনটা পর্যন্ত যে তিনজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে তাঁরা হলেন রেখা বেগম (২৯), তাঁর মেয়ে সানজিদা আক্তার (৮) ও নিখোঁজ গৃহবধূ শীতল আক্তারের (২৭) ছেলে শফিকুল ইসলাম (৭)। চারজনই পরস্পরের আত্মীয়।

নৌকার আরোহীদের সবার বাড়ি কেরানীগঞ্জের জিয়ানগর ও কামরাঙ্গীরচরের চাঁদ মসজিদ এলাকায়। তারা কামরাঙ্গীরচর থেকে কেরানীগঞ্জের খাগাইল ঘাটের উদ্দেশে রওনা দিয়েছিল।

সদরঘাট ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা আবদুল মালেক মোল্লা জানান, ডুবে যাওয়া নৌকায় একই পরিবারের সাতজন ছিল। নদীর মাঝামাঝি স্থানে পৌঁছালে মালবাহী বাল্কহেডের ধাক্কায় নৌকাটি ডুবে যায়। খবর পেয়ে সকালেই ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল এসে উদ্ধার অভিযান শুরু করে। তিনি আরও জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রেখা ও তাঁর মেয়ে সানজিদার লাশ উদ্ধার করা হয়। বিকেল তিনটার দিকে নিখোঁজ গৃহবধূ শীতল আক্তারের ছেলে শফিকুলের লাশ উদ্ধার করা হয়। ওই গৃহবধূকে উদ্ধারে অভিযান চলছে।

নৌ পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ বলেন, যাত্রীবাহী খেয়াডুবির ঘটনায় তিনজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। নিখোঁজ গৃহবধূকে উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিস, নৌ পুলিশ ও কোস্টগার্ডের সদস্যরা উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছেন। বাল্কহেডের ছয় কর্মচারীকে আটক করা হয়েছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন