মালয়েশিয়া থেকে ঢাকায় আসা দুই যাত্রীর কাছ থেকে পাঁচটি সোনার বার উদ্ধার করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)। এসব বার তিনটি ব্লেন্ডার মেশিনের ভেতর নিয়ে এসেছিলেন আলমগীর হোসেন (৩৭) ও আমির হোসেন (৩৬) নামের এই দুই যাত্রী। তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

আজ বুধবার বেলা আড়াইটার দিকে তাঁরা মালয়েশিয়ার একটি উড়োজাহাজে করে ঢাকায় হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে অবতরণ করেন।

বিমানবন্দরে কর্মরত এপিবিএন সূত্র জানায়, আজ বেলা আড়াইটার দিকে আলমগীর হোসেন ও আমির হোসেন মালয়েশিয়ার (ইএ-০৮৭) উড়োজাহাজে ঢাকায় অবতরণ করেন। তাঁরা গ্রিন সিগন্যাল পার হয়ে বিমানবন্দরের বাইরে আসেন। একপর্যায়ে কর্তব্যরত এপিবিএন সদস্যদের সন্দেহ হলে ওই দুজনকে আটক করা হয়। এ সময় তাঁদের কাছে থাকা তিনটি ব্লেন্ডার খুলে দেখা যায়, বিশেষ কৌশলে পাঁচটি সোনার বার লুকিয়ে রাখা। প্রতিটি বারের ওজন ১০০ গ্রাম। এ ছাড়া তাঁদের কাছ থেকে আরও ৫ ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার ও ১২টি মুঠোফোন সেট পায় এপিবিএন।

বিজ্ঞাপন

বিমানবন্দরে কর্মরত এপিবিএনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গণমাধ্যম) আলমগীর হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, উদ্ধার হওয়া সোনার দাম ৩৩ লাখ টাকা।

জ্ঞাসাবাদে আসামিরা এপিবিএন কর্মকর্তাদের কাছে দাবি করেন, মালয়েশিয়া প্রবাসী দানেশ তাঁদের হাতে এসব ব্লেন্ডার দিয়ে শরিয়তপুরে জাজিরায় তাঁর স্ত্রীর কাছে পৌঁছে দিতে বলেন। আটক আলমগীর ও আমিরের বিরুদ্ধে বিমানবন্দর থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে চোরাচালানবিরোধী ধারায় মামলা হয়েছে।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন