বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয় সূত্র বলছে, ডিজেলের দাম বাড়ানোর কারণে বাস ভাড়া কতটুকু বাড়তে পারে, তার একটা হিসাব গত শুক্রবারই করে রেখেছে বিআরটিএ। অন্যদিকে পরিবহনমালিকেরা জ্বালানির বাড়তি দামের সঙ্গে বাসের কাঠামো বা চেসিস, যন্ত্রাংশ, ইঞ্জিন অয়েলসহ অন্যান্য সামগ্রীর দাম বেড়েছে দাবি করে ভাড়া কীভাবে বেশি হারে বাড়ানো যায়, সেই প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানিয়েছেন, দুই পক্ষ বসে দুপুরের মধ্যে নতুন ভাড়া হারের প্রস্তাব তৈরি হয়ে যাবে। এরপর তা অনুমোদনের জন্য সড়ক পরিবহনমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হবে। সন্ধ্যা বা রাতেই এর প্রজ্ঞাপন জারি হতে পারে। ভাড়া চূড়ান্ত না হলেও দুপুরের পর পরিবহন চালুর ঘোষণা আসতে পারে।

জ্বালানি মন্ত্রণালয় গত বুধবার রাতে ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটারে ১৫ টাকা বাড়িয়ে ৮০ টাকা নির্ধারণ করে। এরপর ভাড়া বাড়ানোর দাবিতে গত শুক্রবার অঘোষিতভাবে বাস, ট্রাক ও অন্য পণ্যবাহী যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেন মালিকেরা। এর মধ্যে ঢাকা ও চট্টগ্রামে চলাচলকারী তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস বা সিএনজিচালিত বাসও বন্ধ রয়েছে। এ ছাড়া শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত (এসি) বাস ও ট্রাক চালানোও বন্ধ, যেগুলোর ভাড়া মালিকেরাই ঠিক করেন।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন