default-image

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী উদ্‌যাপন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসছেন বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানেরা। তাঁদের সংবর্ধনা ও আতিথেয়তায় বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীরাও বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দিচ্ছেন। তাঁদের চলাচলের জন্য ঢাকার বিভিন্ন সড়কে যান চলাচলে নিয়ন্ত্রণ আনছে পুলিশ।

সে কারণে আজ সোমবারও কিছু সড়কে চলাচল নিয়ন্ত্রিত হবে। ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) ট্রাফিক পুলিশ ভিআইপি চলাচলের সময় রাজধানীবাসীকে সেসব সড়কের বিকল্প সড়কগুলো ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে।

নেপালের প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী ভান্ডারি আজ সকালে দুই দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে বাংলাদেশে এসেছেন। তিনি বেশ কয়েকটি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। চলাচল করবেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদও। সকালে বিমানবন্দরে গিয়ে আবদুল হামিদ নেপালের প্রেসিডেন্টকে অভ্যর্থনা জানান, তখন সড়কে চলাচল নিয়ন্ত্রিত হয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

নির্ধারিত সময়সূচি অনুযায়ী নেপালের প্রেসিডেন্ট হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল থেকে বিকেল পৌনে চারটায় জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে যাবেন। সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে তিনি হোটেলে ফিরবেন। প্রতিবার তাঁর যাতায়াতের সময় ধরা হয়েছে প্রায় ১০ মিনিট করে।
এ সময় মগবাজার ফ্লাইওভার-বিজয় সরণি সড়ক হয়ে জাতীয় প্যারেড স্কয়ারের যাওয়ার সড়কটি সাময়িক সময়ের জন্য নিয়ন্ত্রিত থাকবে বলে ডিএমপির ট্রাফিক পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের একই অনুষ্ঠানের উদ্দেশে বিকেল চারটার একটু পর বঙ্গভবন থেকে জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে যাওয়ার কথা রয়েছে।

রাষ্ট্রপতির যাতায়াতের নিয়মিত পথ—বঙ্গভবন থেকে জিরো পয়েন্ট হয়ে সচিবালয়, মৎস্য ভবন, মিন্টো রোড, মগবাজার ফ্লাইওভার—সাময়িকভাবে নিয়ন্ত্রিত থাকবে।

এরপর সন্ধ্যা সোয়া সাতটায় নেপালের প্রেসিডেন্ট হোটেল থেকে বঙ্গভবনের উদ্দেশে যাত্রা করবেন। তাঁর যাতায়াতের সময় ধরা হয়েছে ১০ মিনিট। তিনি হোটেলে ফিরবেন রাত ১০টায়।

এ সময় কারওয়ান বাজার থেকে বঙ্গভবন যাওয়ার মগবাজার ফ্লাইওভার-মিন্টো রোড-মৎস্য ভবন-সচিবালয়-জিরো পয়েন্টের সড়কটি নিয়ন্ত্রিত থাকবে।

তবে ট্রাফিক বিভাগ বলছে, নিরাপত্তার স্বার্থে নিয়মিত পথ পরিবর্তনও হতে পারে।

বিজ্ঞাপন
রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন