বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অবশ্য এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ কামরুন নাহার সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা অভিভাবকেরা আসলে ভিকারুননিসা নূন স্কুলের অভিভাবক কি না, তা নিয়েই প্রশ্ন তোলেন। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, যাঁরা অবৈধ ও অনৈতিক সুবিধা চেয়েও পাননি, তাঁরাই চান না তিনি (অধ্যক্ষ) প্রতিষ্ঠানটিকে ভালোভাবে চালিয়ে নেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে অভিভাবক আনিসুর রহমান বলেন, সরকারের নির্দেশনা অমান্য করে বর্তমান অধ্যক্ষ ২০২১ সালের তিন হাজার টাকা সেশন চার্জ আদায় করেছেন। করোনার কারণে অনেক অভিভাবক কর্মহীন হয়ে পড়ায় ফি কমানো বা মওকুফের জন্য আবেদন করা হলেও তা আমলে নেওয়া হয়নি। এমনকি আবেদনকারীরা বিদ্যালয়ে ঘুরেও অধ্যক্ষের সাক্ষাৎ পাননি। অন্যদিকে শুক্র ও শনিবার সরকারি-বেসরকারি সংস্থার পরীক্ষার জন্য প্রতিষ্ঠান ভাড়া দিয়ে লাখ লাখ টাকা আয় করা হচ্ছে। যার অধিকাংশই অধ্যক্ষ আত্মসাৎ করছেন বলে তিনি অভিযোগ করেন।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির পড়াশোনার মানও দিন দিন খারাপ হয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করে আনিসুর রহমান বলেন, অধ্যক্ষের অদক্ষতার কারণেই প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার মান খারাপ হচ্ছে। একই কারণে প্রতিষ্ঠানটির শৃঙ্খলাও ফিরছে না। আনিসুর রহমানের অভিযোগ, এই প্রতিষ্ঠানটি এখন দুর্নীতির ‘স্বর্গরাজ্য’।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন