বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্য তুলে ধরে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘দেশে মোট জনসংখ্যার ৮ শতাংশ প্রবীণ বা বয়োজ্যেষ্ঠ। আমাদের গড় আয়ু ৭১ বছর। গবেষণা থেকে অনুমিত হয় যে ২০৫০ সালে দেশের বয়োজ্যেষ্ঠ মানুষের সংখ্যা ৩ কোটি ৪০ লাখে পৌঁছাবে, যা মোট জনসংখ্যার প্রায় ২৬ শতাংশ হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তখন বাংলাদেশ বার্ধক্য জনসংখ্যার দেশ হিসেবে গণ্য হবে। সংগত কারণে প্রবীণদের কল্যাণে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সরকার তথা দেশের বিত্তবানদের এগিয়ে আসতে হবে।’

পিতা-মাতার ভরণপোষণ তথা প্রবীণদের প্রতি নবীনদের দায়িত্ব পালন সব ধর্মেরই শিক্ষা বলে উল্লেখ করেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। তিনি বলেন, ‘সন্তান কর্তৃক পিতা-মাতার ভরণপোষণ আইন-২০১৩ অনুযায়ী প্রত্যেক সন্তানকে তাঁর পিতা-মাতার ভরণপোষণ নিশ্চিত করতে হবে। কোনো পিতা-মাতার একাধিক সন্তান থাকলে সে ক্ষেত্রে সন্তানেরা নিজেদের মধ্যে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে তাঁদের পিতা-মাতার ভরণপোষণ নিশ্চিত করবে।’

সৈয়দ মাহমুদ হোসেন আরও বলেন, ‘বিশ্বদরবারে বাংলাদেশের মর্যাদা ও বর্তমান সম্মানজনক অবস্থান সৃষ্টির জন্য প্রবীণদের ভূমিকা অনস্বীকার্য। তাই তাঁদের অধিকার ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠার জন্য সরকার এবং সমাজের সর্বস্তরের মানুষকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে আরও এগিয়ে আসতে হবে। সরকারের প্রণীত প্রবীণ নীতিমালা ও পিতা-মাতার ভরণপোষণ আইন পূর্ণ বাস্তবায়নে সমাজের সবাইকে ভূমিকা পালন করতে হবে।’
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের সাবেক চেয়ারম্যান ও সিনিয়র সিটিজেনস ওয়েলফেয়ার সোসাইটির চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. মমতাজ উদ্দিন আহমেদ। অন্যদের মধ্যে বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বিচারপতি নিজামুল হক, সাবেক মন্ত্রী এ বি এম গোলাম মোস্তফা ও সংগঠনের মহাসচিব প্রকৌশলী মো. ফজলুল হক বক্তব্য দেন।

এ নিয়ে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, অনুষ্ঠানে নয়জন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। তাঁরা হলেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) এম হারুন-অর-রশিদ বীর প্রতীক, সৈয়দ রেজাউর রহমান, বিচারপতি মো. মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, মেজর জেনারেল (অব.) জীবন কানাই দাস, অধ্যাপক আবদুল মান্নান চৌধুরী, প্রকৌশলী মো. কবির আহমেদ ভুঞা, মো. হারুনার রশিদ জমাদ্দার, মোহাম্মদ আহম্মদ হোসেন আদু ও মো. আবদুল করিম সরকার।

রাজধানী থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন